ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  জাতীয়   »   ৯টার গাড়ি ৬টায়

৯টার গাড়ি ৬টায়

September 8, 2016 - 2:21 PM

ঢাকা : ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে যানজট হওয়ায় উত্তরবঙ্গগামী দুরপাল্লার কোনো কোচই নির্দিষ্ট সময়ে ঢাকা ছাড়তে পারেনি।

আর গরুবাহী গাড়ির চাপে নির্দিষ্ট সময়ে ঢাকায় আসতে পারছে না যাত্রীবাহী গাড়ি। কাউন্টারেও নেই কোনো গাড়ি। বিকেল ৪টার পরও কাউন্টারে এসে পৌঁছায়নি ৯টায় ছেড়ে যাওয়ার গাড়ি।

সকাল থেকেই অনিশ্চিত সময়ের দিকে তাকিয়ে আছেন খুলনা, সাতক্ষীরা, বরিশাল যশোরসহ দক্ষিণাঞ্চলের যাত্রীরা। কাউন্টারের লোকেরাই বলতে পারছেন না কখন ছাড়তে পারে গাড়ি। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বিকলে পর্যন্ত রাজধানীর গাবতলী আন্তঃাজেলা বাস টার্মিনালে সরজমিনে গিয়ে এ চিত্র দেখা যায়।

এরই মধ্যে অনেক যাত্রী তাদের টিকিট ফেরত দিচ্ছেন। সেক্ষেত্রে ১০০টাকা করে জরিমানা গুণছেন অগ্রিম টিকিট কাটা যাত্রীরা।

আত্মীয় স্বজনদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে রাজধানী ছাড়তে শুরু করেছে মানুষ। গাবতলী বাস টার্মিনালে সকাল থেকেই ঘরমুখো মানুষের ভিড় লক্ষণীয়। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে যাত্রীদের সংখ্যা বেড়ে চলছে। কাউন্টারগুলোর সামনে লোকে লোকারণ্য কিন্তু গাড়ি নেই।

সাকুরা পরিবহনের এসি বাসের কাউন্টার ম্যানেজার মাইনুল ইসলাম বলেন, ‘কোনো বাস নেই। ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে যানজটের কারণে উত্তরের কোনো গাড়ি সময় মত ছাড়তে পারি নাই। ঢাকায় ঠিক সময়ে গাড়ি আসতেও পারেনি, ছাড়বে কীভাবে?’

তিনি বলেন, ‘ভোরের দিকের গাড়িগুলো ছেড়ে গেছে। কিন্তু পৌনে নয়টার সিডিউল করা গাড়ি ছেড়ে গেছে কিছুক্ষণ আগে। আর সকাল ৯টার সিডিউল করা বাস কখন ছাড়া সম্ভব হবে তা বলা যাচ্ছে না।’

তিনি সময় সর্ম্পকে সংশয় নিয়ে বলেন, ‘যে বাসের ছেড়ে যাওয়ার কথা ছিলো আজ সকাল ৯টায় সেটা সন্ধ্যা ৬টার দিকে কাউন্টারে এসে পৌঁছাতে পারে বলে ধারণা করছি।’

এই অবস্থা গাবতলী বাস টার্মিনালে সব পরিবহনেই। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, সামনের দিনগুলোতে যানজট আরো বাড়বে। শিডিউল বিপর্যয়ের এই ধাক্কা ঈদের আগ পর্যন্ত থাকবে বলে আশঙ্কা করছেন অনেকেই।

এদিকে ঈদুল আজহাকে কেন্দ্র করে অধিকাংশ গাড়ির টিকিট অগ্রিম বিক্রি করা হয়েছে। বেশিরভাগ কাউন্টারে টিকিট নেই- এমন নোটিশ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে।

ঈদের ছুটিতে বরিশালের উজিরপুরে যাচ্ছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রিয়াদ হাসান। অগ্রিম টিকিট না কাটায় তাকে পড়তে হয়েছে চরম ভোগান্তিতে।

তিনি বলেন, ‘সময়ের অভাব। আগে টিকিট কাটতে পারিনি। এখন আর ভালো গাড়ি পাই নাই। এরপরও স্বাভাবিক ভাড়ার দেড়গুণ বেশি দিয়ে টিকিট কাটলাম। তারপরও সকাল থেকে বসে আছি। কখন যেতে পারবো, সেটাই বুঝতে পারছি না।’

আপনার মতামত জানানঃ