ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  জাতীয়   »   ১৯ হাজার ৮ টন বর্জ্য অপসারণে ডিএসসিসি সক্ষম

১৯ হাজার ৮ টন বর্জ্য অপসারণে ডিএসসিসি সক্ষম

September 15, 2016 - 7:48 AM

নিজস্ব প্রতিবেদক : পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় কোরবানির বর্জ্য অপসারণে শতভাগ সক্ষম হয়েছেন বলে দাবি করেছেন মেয়র সাঈদ খোকন। বৃহস্পতিবার সকালে নগর ভবনের সামনে ঈদুল-আজহা পরবর্তী এক সংবাদ সম্মেলনে এমন দাবি করেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন। তিনি উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, ‘আপনারা ডিএসিসিস এলাকা ঘুরে দেখতে পারেন কোথাও কোরবানির বর্জ্য পাবেন না। কিন্তু ঈদের তৃতীয় দিনে সামান্য কিছু কোরবানি হয় সেই বর্জ্য থাকতে পারে।’ সাঈদ খোকন বলেন, ‘১ সেপ্টেম্বর থেকে নানা কর্মসূচির মাধ্যমে বলে আসছি ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে কোরবানির বর্জ্য অপসারণ করব। কিন্তু তার আগেই শতভাগ কোরবানির বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছে। যার পরিমাণ ১৯ হাজার ৮ টন।’ তিনি বলেন, ‘আমাদের নিজস্ব গাড়িসহ ৩২৪টি গাড়িতে ২ হাজার ৯০২টি ট্রিপের মাধ্যমে বর্জ্য অপসারণ করা হয়েছে।’ জনগণকে সচেতন ও প্রাতিষ্ঠানিক সক্ষমতা বাড়ানোর চেষ্টা করেছেন জানিয়ে সাঈদ খোকন বলেন, ‘আমাদের নির্ধারিত ৫০৪ স্থানে অনেকেই কোরবানি না দিলেও শতভাগ সক্ষম হয়েছি কোরবানির বর্জ্য অপসারণে।’ তিনি বলেন, ‘৪৮ ঘণ্টার মধ্যে কোরবানির বর্জ্য অপসারণ করতে সক্ষম হয়েছি। আর এই অর্জন জনগণ ও পরিচ্ছন্নকর্মীদের।’ কোরবানির দিন সকালে ডিএসসিসি এলাকার শান্তিনগর ও রাজারবাগ সড়কে রক্তের স্রোতের কথা উল্লেখ করে মেয়র বলেন, ‘রক্তলাল শহর আমাদের দুর্বলতা। আমরা এই ধরনের পরিস্থিতির সম্মুখীন প্রথমবারের মতো। তবে ওই দিন বিকেল ৩টার মধ্যে সকল রক্ত পানি অপসারণ করতে সক্ষম হয়েছি।’
আগামী বছর কোরবানির দিনে বৃষ্টি হবার সম্ভাবনা থাকলে আগে থেকেই ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান মেয়র। কোরবানির পশুর হাটের সীমানা বেড়ে যাওয়া ও বর্জ্য জমানো পলিব্যাগ সরবরাহের বিষয়ে সাংবাদিকদের একাধিক প্রশ্নের জবাবে হাট প্রসঙ্গে মেয়র বলেন, ‘সেই মুহূর্তে আমরা ব্যবস্থা নিলে বিশৃঙ্খলা দেখা দিত। আর পলিব্যাগ সরবরাহে অনিয়ম হতে পারে, সেটা আমাদের দুর্বলতা।’
এ ছাড়া ঈদের সকালে বৃষ্টি হওয়ার পরেও ঈদের নামাজের জামাত ভালোভাবে শেষ করতে সক্ষম হয়েছি বলেন মেয়র।
মেয়র আরো বলেন, ‘এবার ডিএসসিসি এলাকায় প্রায় ২ লাখ ৪০ হাজার পশু কোরবানি হয়েছে। নির্দিষ্ট স্থানে শতভাগ কোরবানি হয়নি। এজন্য আরও কয়েক বছর সময় প্রয়োজন হবে নাগরিকদের সচেতনমা বাড়াতে।’ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মো. বিলাল, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপক এম কে বখতিয়ারসহ ডিএসসিসির অন্যান্য কর্মকর্তা।

আপনার মতামত জানানঃ