ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  সারা বাংলা   »   ১৪ বছর বয়সে সৌদি যান কুলসুম, ফিরল কফিনবন্দি

১৪ বছর বয়সে সৌদি যান কুলসুম, ফিরল কফিনবন্দি

সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২০ - ৮:২৭ অপরাহ্ণ

১৪ বছরের কিশোরীর বয়স বাড়িয়ে করা হয় ২৬। পরিবারের হাল ধরতে সে পাড়ি দেয় সৌদি আরব। ফিরেছে সে, তবে কফিনবন্দি হয়ে। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার উম্মে কুলসুমের মৃত্যুতে দালাল চক্রের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন স্বজনরা।

পরিবারের সচ্ছলতা ফিরিয়ে আনতে সৌদি আরবে পাড়ি জমান ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার নূরপুর গ্রামের উম্মে কুলসুম। মাত্র ১৪ বছর বয়স হলেও বয়স বাড়িয়ে ২৬ কোরে ভুয়া জন্ম নিবন্ধন তৈরি করেন দালাল রাজ্জাক। পরে আঞ্চলিক অফিস থেকে পাসপোর্ট তৈরি করে রিক্রুটিং এজেন্ট মেসার্স এম এইচ ট্রেড ইন্টারন্যাশনালের মাধ্যমে সৌদি আরবে পাঠানো হয় তাকে। চুক্তি অনুযায়ী কোম্পানিতে নিয়োগ না দিয়ে একটি বাড়িতে গৃহকর্মীর কাজ দেয়া হয় তাকে।

এরপর তার ওপর শুরু হয় গৃহকর্তার শারিরীক নির্যাতন। এক পর্যায়ে গত ৯ আগস্ট সৌদি আরবের কিং ফয়সাল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় সে। শনিবার তার লাশ দেশে আনা হলে, গত শনিবার নিজ গ্রামে দাফন করা হয়।

দালাল ও রিক্রুটিং এজেন্সির কাছে অমানুষিক নির্যাতনের কথা জানানোর পরও তারা কোনো ব্যবস্থা নেয়নি অভিযোগ পরিবারের।

নিহত উম্মে কুলসুমের মা নাসিমা বেগম বলেন, ‘আমার মেয়েটারে মাইরে ধরে বাম চোখটা কানা করছে। ডা হাত পা ভাঙছে। ওষুধ পানি দিছে না।’

নিহত উম্মে কুলসুমের বাবা শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘সরকারের কাছে ক্ষতিপূরণ চাই। দালালের সুষ্ঠু বিচার চাই।’

দালাল সহ রিক্রুটিং এজেন্সির বিরুদ্ধে অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া নাসিরনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এটি এম আরিচুল হক।

ঘটনাটি মর্মান্তিক উল্লেখ করে নিহতের পরিবারকে সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া নাসিরনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাজমা আশরাফী।

আপনার মতামত জানানঃ