ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  আন্তর্জাতিক   »   হোয়াইট হাউসে বেসবল খেলছেন ট্রাম্প

হোয়াইট হাউসে বেসবল খেলছেন ট্রাম্প

জুলাই ২৪, ২০২০ - ১২:৩৭ অপরাহ্ণ
ট্রাম্প

এবার হোয়াইট হাউসে বেসবল খেললেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প । করোনার রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে যুক্তরাষ্ট্রে মাঠে গড়াচ্ছে মেজর বেসবল লিগের এবারের মৌসুম। লিগকে সমর্থন জানাতেই ট্রাম্পের এমন উদ্যোগ। শুধু তাই নয়, বেসবলের পাশাপাশি অতিদ্রুত সবধরনের ক্রীড়া ইভেন্ট মাঠে ফেরানোর ঘোষণা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

ভুলেও ভাববেন না রাষ্ট্র পরিচালনার ফাঁকে বেসবলে তালিম নিচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প । এটা ভাবারও অবকাশ নেই খেলাটির প্রেমে বুঁদ হয়ে আছেন তিনি। সত্যিকারের সত্যিটা হলো, এখানেও আছে রাজনীতির সূক্ষ্ম চাল।

করোনায় বিপর্যস্ত মার্কিন মুল্লুক। অথচ ওসবে থোরাই কেয়ার মিস্টার প্রেসিডেন্টের। দৃষ্টি সরাতে প্রাদুর্ভাবের মধ্যেই অনুমতি দেয়া হয়েছে দেশটির সবচাইতে জমজমাট আসর মেজর বেসবল লিগ শুরু করার। সেটাকে প্রতিষ্ঠিত করতেই এমন আয়োজন।

নিউইয়র্ক ইয়াঙ্কিন্সের ক্ষুদে সমর্থকদের সঙ্গে ট্রাম্প বেসবল খেলেন মিনিট পাঁচেক। ছিলেন দেশটির কিংবদন্তি তারকা মারিয়ানো রিভেরাও। তবে ডোনাল্ড ট্রাম্প থাকবেন আর বিতর্ক থাকবে না এমটা কি হয়! হতে পারে? নিজে ম্যাচ দেখবেন কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে স্বভাবসুলভ উত্তর মার্কিন অধিপতির।

ট্রাম্প বলেন, ‘দেখুন, আমাকে অনেক খেলা নিয়েই ব্যস্ত থাকতে হয়। চীন, রাশিয়া, উত্তর কোরিয়াসহ ত্রিশটি দেশকে নিয়ে। তবে হ্যাঁ, আমি কয়েকটি ম্যাচ দেখবো। তবে সম্পূর্ণ নয়।’

এখানেই শেষ নয়। দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে এবারের বেসবল লিগ আয়োজনের কথা থাকলেও ১৫ই আগস্ট রেড সক্সের বিপক্ষে ম্যাচ দেখতে মাঠে যাওয়ার কথাও জানান ট্রাম্প। সাথে ধন্যবাদ জানান আয়োজক কমিটিকেও।

ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেন, ‘আমার মনে হয় আমরা একটা দারুণ দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছি মাঠে খেলা ফেরানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে। হোক না সেটা শূন্য স্টেডিয়ামেই। এর ফলে আমরা অনেক দেশের চেয়েই স্বাভাবিক পরিস্থিতির দিকে এগিয়ে গেলাম। বেসবল শুরু হলো, সকার শুরু হলো, গলফ, এনএফএল, টেনিস সবই মাঠে ফিরবে। আমাদের যত দ্রুত সম্ভব স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে হবে।’

যদিও মার্কিন প্রেসিডেন্টের এমন উচ্চ প্রত্যাশার সঙ্গে মোটেও একমত নন দেশটি স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। কারণ এখনও দেশটিতে সক্রিয় করোনা কেইসের সংখ্যা ২১ লাখ ছাড়িয়েছে। করোনার কারণে ৪ মাসের বেশি সময় সব ধরণের ক্রীড়া ইভেন্ট বন্ধ ছিলো যুক্তরাষ্ট্রে।

আপনার মতামত জানানঃ