ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  সারা বাংলা   »   সুদখোরদের চাপে বাগেরহাটে স্কুল শিক্ষিকার আত্মহত্যা

সুদখোরদের চাপে বাগেরহাটে স্কুল শিক্ষিকার আত্মহত্যা

জুলাই ২২, ২০২০ - ৬:৫৪ অপরাহ্ণ
আত্মহত্যা

বাগেরহাটের চিতলমারীতে সুদখোরদের চাপে স্কুল শিক্ষিকা হাসি কণা বিশ্বাসের আত্মহত্যা এর ঘটনায় মামলা করা হয়েছে।

তার মৃত্যুর দুদিন পরে বুধবার (২২ জুলাই) বিকেলে হাসি কণার স্বামী যুগল কান্তি ডাকুয়া বাদী হয়ে ৮ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও কয়েকজনকে আসামি করে আত্মহত্যার প্ররোচণার অভিযোগে চিতলমারী থানায় এই মামলা দায়ের করেন।

এর আগে সুদিকারবারীদের তিরস্কার ও গালিগালাজ সহ্য না করতে পেরে সোমবার (২০ জুলাই) বিকেলে নিজ বসতঘরের আড়ার সাথে গলায় রশি বেঁধে আত্মহত্যা করেন হাসি কণা বিশ্বাস।

হাসিকনা উপজেলার দক্ষিণ শিবপুর মধ্যপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষিকা এবং খরমখালি গ্রামের যুগল কান্তি ডাকুয়ার স্ত্রী ছিলেন।

চিতলমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মীর শরিফুল হক বলেন, হাসিকণার স্বামী যুগল কান্তি ডাকুয়া বাদী হয়ে অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগটি আমলে নেয়া হয়েছে, নিয়মিত মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করেছি। সঠিক তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

যুগল কান্তি ডাকুয়া বলেন, রোববার সকালে স্ত্রীকে নিয়ে বাজারের যাওয়ার সময় সুদের পাওনাদার অনুপ, বিকাশ ও রত্না সুদের টাকার জন্য আমাদের গালিগালাজ করে। সোমবার বিকাশ ও রত্না আবার বাড়িতে এসে আমার স্ত্রীকে গালিগালাজ করে যায়। এর কিছুক্ষণ পরে বিকেলে আমার স্ত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন। আমি এর সঠিক বিচার চাই।

যুগল আরও বলেন, বিপদে পরে ৬ মাসে সাড়ে চার লাখ টাকা পরিশোধের শর্তে বিকাশ ও রত্মার কাছ থেকে তিন লাখ টাকা কারেন্ট সুদে লোন গ্রহণ করি আমি। কিছু টাকাও দিয়েছি। করোনাকালীন সুদের টাকা না দিতে পারায় ওরা আমাদের ওপর মানসিক অত্যাচার শুরু করে। এছাড়া আরও কয়েকটি এনজিও টাকার জন্য চাপ প্রয়োগ করে।

আপনার মতামত জানানঃ