ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  জাতীয়   »   সরকারি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দেবে হার্ভার্ড কেনেডি স্কুল

সরকারি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দেবে হার্ভার্ড কেনেডি স্কুল

September 14, 2016 - 2:40 PM

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক : কাজে দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য চলতি অর্থবছরে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দেবে হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের হার্ভার্ড কেনেডি স্কুল।

এ বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ও হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলের মধ্যে একটি সমঝোতা চুক্তি হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রে সফররত জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী ও হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলের সিনিয়র অ্যাসোসিয়েট ডিন ডেবরা ইলস সম্প্রতি চুক্তিতে নিজ নিজ পক্ষে স্বাক্ষর করেন।

বুধবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ তথ্য অফিসার মো. তৌহিদুল ইসলাম এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ‘চুক্তির আওতায় ২০১৬-২০১৭ অর্থবছরে সরকারের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলে প্রশিক্ষণের সুযোগ পাবেন। এতে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসের কর্মকর্তাদের দক্ষতা বৃদ্ধি, উচ্চশিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও গবেষণার ক্ষেত্রে সম্ভাবনার নতুন দ্বার উন্মুক্ত হবে।’

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দক্ষ ও সেবামুখী জনপ্রশাসন গড়ে তুলতে সরকারি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণের ওপর বিশেষভাবে জোর দিয়েছেন। তারই ধারাবাহিকতায় গতবছর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরীর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল যুক্তরাষ্ট্রের খ্যাতনামা বিশ্ববিদ্যালয় ও প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে আলোচনা শুরু করেন। এ প্রেক্ষাপটেই হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলের সঙ্গে বাংলাদেশ সরকারের এ সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন নিউ ইয়র্কে বাংলাদেশ দূতাবাসের কনসাল জেনারেল মো. শামীম আহসান, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপসচিব ড. আব্দুল হামিদ। এ সময় হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলের সিনিয়র ডিরেক্টর, প্রোগ্রাম ডেভেলপমেন্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনিয়র অধ্যাপক, প্রোগ্রাম ডেভেলপমেন্ট আনমেরি সাসডি, সিনিয়র ডিরেক্টর, প্রোগ্রাম ডেলিভারি এরিকা লেন ও হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলের কয়েকজন অনুষদ সদস্য।

সমঝোতা চুক্তিতে স্বাক্ষরের পর বাংলাদেশের প্রতিনিধিদল হার্ভার্ড কেনেডি স্কুলের একাডেমিক ডিন আরচন ফুং, প্রফেসর জে. কে. রোজেনবাগ ও প্রফেসর হাগ ও দোহারিতির সঙ্গে আলোচনা করেন।

আলোচনায় বাংলাদেশের সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য চাহিদাভিত্তিক প্রশিক্ষণের আয়োজন, প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠানগুলোর মান উন্নয়ন এবং প্রশিক্ষণ কারিকুলাম উন্নয়নের বিষয় প্রাধান্য পায়।

আপনার মতামত জানানঃ