ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  Uncategorized   »   সন্ধ্যা নদীতীরে হাজারো গ্রামবাসীর মানববন্ধন

সন্ধ্যা নদীতীরে হাজারো গ্রামবাসীর মানববন্ধন

September 18, 2016 - 9:54 AM

এম এ হান্নান,বরিশাল :
মহান মুক্তিযুদ্ধে যে অকুতোভয় মৃত্যুঞ্জয়ী বীরের গৌরবোজ্জ্বল আত্মত্যাগের বিনিময়ে অর্জিত হয়েছে এই দেশ, সেই বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীরের জন্মভুমি বাবুগঞ্জের রহিমগঞ্জ গ্রাম আজ সন্ধ্যা নদীর ভাঙনে বিলীন হওয়ার পথে। ইতিমধ্যে নদীবক্ষে হারিয়ে গেছে বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীরের বসতবাড়ির প্রায় ৫ একর জমিসহ রহিমগঞ্জের বীরশ্রেষ্ঠ ল ঘাট ও বাজার। এখন তীব্র ভাঙনের মুখে রয়েছে বীরশ্রেষ্ঠের নামে প্রতিষ্ঠিত ঐতিহাসিক জাদুঘর, একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও একটি কলেজসহ বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীরের পৈত্রিক বসতভিটার সর্বশেষ স্মৃতিচিহ্নটুকুও। এমনকি ভাঙন ঝুঁকির মধ্যে এখন দক্ষিণবঙ্গে প্রবেশদ্বারে নির্মিত ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর সেতু। অথচ এ ব্যাপরে যেন বিন্দুমাত্র মাথাব্যথা নেই সংশ্লিষ্ট কোন দপ্তরের। এমন নিদারুণ বাস্তবতায় এবার বীরশ্রেষ্ঠের স্মৃতিচিহ্ন রক্ষার্থে সোচ্চার হয়ে রাস্তায় নেমেছে এলাকাবাসী। বীরশ্রেষ্ঠের পৈত্রিক ভিটাবাড়ি ও জাদুঘরসহ তার নামের বিভিন্ন স্থাপনা রক্ষায় উপজেলার রহিমগঞ্জ গ্রামে সন্ধ্যা নদীতীরে স্মরণকালের সর্ববৃহৎ মানববন্ধন করেছে স্থানীয় কয়েক হাজার গ্রামবাসী। গতকাল সকাল ১০টা থেকে প্রায় সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ওই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীরের ছোটভাই মোঃ মঞ্জুর রহমান বাচ্চুর সভাপতিত্বে নদীতীরে আড়াইঘন্টার ওই দীর্ঘ মানববন্ধনকালে বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান এস.এম খালেদ হোসেন স্বপন, আগরপুর ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ এবায়দুল হক শাহীন, জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তারিকুল ইসলাম তারেক, সেনাবাহিনীর প্রশাসনিক কর্মকতা নজরুল ইসলাম হাওলাদার, বীরশ্রেষ্ঠ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোফাজ্জেল হোসেন, মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবুল কালাম, আগরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুজাফ্ফর আলী, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মিজানুর রহমান হারুন, আওয়ামী লীগ নেতা সাইফুল ইসলাম, আব্দুল হালিম, ছাত্রলীগ নেতা আজিজুল ইসলাম, রিয়াদ রহমান কাজল, নাজমুল হাসান বাবু, আনাম আহমেদ শাহজাদা প্রমুখ। এসময় উপজেলার রহিমগঞ্জ গ্রামে সন্ধ্যা নদীর ভাঙন কবলিত এলাকায় প্রায় ২ কিলোমিটারব্যাপী ওই দীর্ঘ মানববন্ধনে স্থানীয় বিভিন্ন শ্রেণীপেশার প্রায় কয়েক হাজার মানুষ অংশগ্রহন করেন।

আপনার মতামত জানানঃ