ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  ক্রাইম   »   রূপগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারকে নিয়ে সংঘর্ষ, আহত ৬

রূপগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারকে নিয়ে সংঘর্ষ, আহত ৬

নভেম্বর ৪, ২০২০ - ৮:৫০ অপরাহ্ণ

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ছয়জনকে কুপিয়ে আহত করার ঘটনা ঘটেছে।
পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে ঘটনাস্থলে পুলিশ গেলে প্রাইভেটকারের নিচে এক পুলিশ কর্মকর্তাকে চাপা দেয়ার চেষ্টার অভিযোগে পৌর প্যানেল মেয়রকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩ নভেম্বর) রাতে উপজেলার তারাইল এলাকায় হামলার পর পুলিশ কাঞ্চন পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও স্থানীয় ১ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পনির হোসেনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

ভোলাব তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মাহাবুবুর রহমান জানান, কাঞ্চন পৌরসভার তারাইল এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দীর্ঘদিন ধরে কাঞ্চন পৌরসভার প্যানেল মেয়র পনির হোসেন ও তার ভাই শহিদুল ইসলামের সঙ্গে একই এলাকার আয়নাল হক ও সজীব মিয়ার বিরোধ চলছিল। এর জের ধরে মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে আয়নাল হক, সজীব মিয়া, রবিউল ইসলাম, দুলাল মিয়াসহ ৭-৮ জনকে বিরাব বাজারে পেয়ে কাউন্সিলর পনির হোসেন, তার ভাই শহিদুল ইসলামসহ ২০-২২ জন দেশিয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে তাদের ওপর হামলা চালায়। হামলায় আয়নাল হক, সজীব মিয়া, রবিউল ইসলাম ও দুলাল মিয়াসহ ছয়জন আহত হন। খবর পেয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে কাউন্সিলর পনির হেসেন প্রাইভেটকার চালিয়ে তাকে (তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মাহবুবুর রহমান) চাপা দিয়ে দ্রুত সেখান থেকে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। গাড়িচাপায় পায়ে গুরুতর আহত হন তিনি (ইন্সপেক্টর মাহবুবুর রহমান)।

ভোলাব তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মাহাবুবুর রহমান আরও জানান, এ ঘটনায় পুলিশ কাউন্সিলর পনির হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় আয়নাল হককে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ছাড়া ইন্সপেক্টর মাহাবুবসহ অন্যান্য আহতদের রূপগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে রূপগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মাহামুদুল হাসান বলেন, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে হামলার ঘটনা শুনে পুলিশ পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে ঘটনাস্থলে গেলে হামলাকারীরা পুলিশের ওপর হামলা চালায়। এ ঘটনায় রূপগঞ্জ থানায় দুটি মামলা হয়েছে। তারাইল এলাকার সজীব মিয়া বাদী হয়ে ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেন। একই ঘটনায় পুলিশের কাজে বাধা প্রদানসহ হামলার অভিযোগে রূপগঞ্জ থানার এসআই আমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে পৃথক আরেকটি মামলা দায়ের করেছেন।

মামলায় অভিযুক্ত প্রধান আসামি কাঞ্চণ পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর পনির হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্যান্য আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে বলেও জানান তিনি।

আপনার মতামত জানানঃ