ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  জাতীয়   »   রিকশা চালককে মারধরে প্রতিবাদে খুন হন সোহাগ

রিকশা চালককে মারধরে প্রতিবাদে খুন হন সোহাগ

আগস্ট ২৮, ২০২০ - ৫:৩৭ অপরাহ্ণ

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজধানীর উত্তরখান এলাকায় ছুরিকাঘাতে সোহাগ নামে এক যুবক খুন হন বলে জানিয়েছে পুলিশ। মৃত সোহাগ উত্তরা পাবলিক কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী।

এ বছর তার এইচএসসি পরীক্ষা ছিলো। এছাড়াও তিনি উত্তরখান ৪৬ নম্বর ওয়ার্ডের ছাত্রলীগ সদস্য ছিলেন।
বৃহস্পতিবার (২৭ আগস্ট) রাত সাড়ে ৮টার দিকে উত্তরখান রাজাবাড়ি খ্রিস্টান পাড়ায় এক রিকশা চালককে মারধরের প্রতিবাদ করায় কয়েকজন যুবক সোহাগকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যান।

শুক্রবার (২৮ আগস্ট) উত্তরখান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হেলাল উদ্দিন বিষয়টি জানান।

তিনি বলেন, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উত্তরখানে রাজাবাড়ী খ্রিস্টান পাড়ায় রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন সোহাগ। সেখানে কয়েকজন যুবকও দাঁড়িয়ে ছিলেন। তখন একটি রিকশা যাওয়ার সময় ওই যুবকদের একজনের গায়ে কাঁদা ছিটে যায়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বখাটে যুবকগুলো রিকশা চালককে মারধর করেন। এর প্রতিবাদ জানাতে এগিয়ে যান সোহাগ। তাকেও বখাটেরা একটি চড় দেয় এবং সঙ্গে থাকা ছুরি দিয়ে আঘাত করেন।

তিনি বলেন, রক্তাক্ত অবস্থায় স্থানীয়রা সোহাগকে উত্তরা নর্দান হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এরপর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) মর্গে পাঠানো হয়।

ময়নাতদন্ত শেষে শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয় বলেও জানান ওসি।

তিনি বলেন, এ বিষয়ে মৃত সোহাগের পরিবারের পক্ষ থেকে একটি হত্যা মামলা দায়ের প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। মূল আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

এদিকে মৃত সোহাগের বড় ভাই সোলাইমান বলেন, সামান্য ঘটনাকে কেন্দ্র করেই কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা আমার ভাইকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত চার জনকে পুলিশ রাতেই আটক করে। তবে মূল আসামি হৃদয় পলাতক রয়েছে। পুলিশ তাকে গ্রেফতারের চেষ্টা করছে।

তিনি আরও বলেন, আমার ভাই এ বছর এইচইসসি পরীক্ষার্থী ছিল। রিকশা চালককে মারধরের প্রতিবাদ করায় আজ আমার ভাইকে ওরা হত্যা করলো। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

আপনার মতামত জানানঃ