ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  লাইফস্টাইল   »   যে লক্ষণে বুঝবেন আপনার সঙ্গী সৎ নাকি অসৎ

যে লক্ষণে বুঝবেন আপনার সঙ্গী সৎ নাকি অসৎ

ডিসেম্বর ১, ২০২০ - ১:২১ অপরাহ্ণ

দিন বদলের সঙ্গে সঙ্গে বলদে গেছে অনুভূতি, বিশ্বাস আর আস্থা। আগের মতো এখন আর লাইলি-মজনু ধরনের প্রেমে কেউ বিশ্বাসী নয়। তারপরও প্রেম রয়ে গেছে।

তবে এখনকার প্রেম শুধু একজনের সঙ্গে চলে না, সঙ্গে থাকে আরো বেশ কয়েকজনও। এক কথায়, একসঙ্গে একাধিক প্রেমিক-প্রেমিকা থাকে একজনেরই। তাইতো দিন দিন প্রেমের প্রতি বিশ্বাস হারাচ্ছে মানুষ।

মনের মানুষটিকে নিয়ে নারীদের মনে জল্পনা-কল্পনা থাকে। বেশিরভাগ নারীরাই ছেলেদের রূপ দেখে প্রেমে পড়ে, মানুষ হিসেবে কেমন? সে বিষয় জানা প্রয়োজন বোধ করেন না।

তবে সম্পর্কে পর থেকে যখন অবিশ্বাস তৈরি হয় তখন জটিল হয়ে পড়ে দাম্পত্য জীবন। এজন্য কয়েকটি লক্ষণ রয়েছে, যার মাধ্যমে আপনি সহজেই জানতে পারবেন আপনার প্রেমিক বা স্বামী সৎ নাকি অসৎ।

ভালোবাসার মধ্যে সব থেকে বড় শক্তি হচ্ছে বিশ্বাস। পারস্পরিক বিশ্বাসের উপরই টিকে থাকে ভালোবাসার ভিত। কিন্তু আপনার সঙ্গী যদি দ্বিতীয়-তৃতীয় কারো সঙ্গে সম্পর্ক রাখে তাহলেই বিপদ। ভাবছেন কী করে বুঝবেন? হ্যাঁ, অন্য কারো সঙ্গে তার সম্পর্ক আছে কিনা সেটি বুঝার জন্য রয়েছে কিছু উপায়। চলুন জেনে নেয়া যাক কী সেই উপায়গুলো-

* পাসওয়ার্ড চাওয়া
প্রেমিক ভালোবাসার খাতিরে আপনার কাছ থেকে ফোনের পাসওয়ার্ডসহ ফেসবুক পাসওয়ার্ড চাইতে পারে। তবে ভুলেও কিন্তু একাজ করবেন না। কারণ সবার জীবনেই প্রাইভেসি রয়েছে। যদি আপনার কাছে পাসওয়ার্ড চায়, তাহলে বুঝবেন সে আপনাকে সন্দেহ করছে।

* বেশি অন্তরঙ্গ নয়
যদি দেখেন আপনার সঙ্গী কখনই আপনার সঙ্গে বেশি কথা বলতে উৎসাহী হন না। কোনো রোমেন্টিক ডেটের প্ল্যান করে না আবার আপনি পাঁচবার ফোন করলে দুবার রিসিভ করে, এরকম হলে বুঝবেন তিনি আপনাকে মন থেকে ভালোবাসেন না। এমনকি রাতে আপনার সঙ্গে থাকলেও যৌনসঙ্গম বাদে বাকি সময়টুকু কথা বলেন না। এরকম মানুষকে অবশ্যই এড়িয়ে চলবেন।

* চোখে চোখ রেখে কথা বলে
মানুষ তখনই চোখে চোখ রেখে কথা বলবে যখন সে সত্যি কথা বলবে। যদি দেখেন প্রেমিক আপনার চোখে চোখ রেখে কথা বলছে, বুঝবেন তিনি সত্যিই আপনাকে ভালোবাসেন।

* অন্যদিনের তুলনায় বেশি ফোন করলে
আপনাকে হয়তো প্রেমিক বলে গিয়েছে সারাদিন তিনি কোনও মিটিং এ ব্যস্ত থাকবেন। কিংবা অফিসে খুব কাজের চাপ। তাই আপনি যেন ফোন বা টেক্সট করে বিরক্ত না করেন। এদিকে কাজের বেলায় পুরো আলাদা। আপনি জানছেন উনি ব্যস্ত, ওদিকে প্রেমিক মিথ্যে ঢাকতে আপনাকে একটু বেশিই টেক্সট করছে। দুমিনিটের জন্য হলেও কল করছেন।

* কিছুই লুকায় না
যদি দেখেন আপনার প্রিয়জন কোনো কিছু না লুকিয়ে বরং আপনার সঙ্গে মন খুলে কথা বলেন, তবে সে সৎ। নিজের দুঃখ সমস্যার কথা যেমন বলেন তেমনই তিনি যা চাইছেন, নিজের কেরিয়ার প্ল্যান সেসবও বলেন। আপনার কোনো কিছু খারাপ লাগলে সেটাও মুখের উপর বলে দিতে পারে এমন ব্যক্তি। এই রকম ব্যক্তিই প্রকৃত সৎ।

* বন্ধুদের সঙ্গে পরিচয় করানো
অনেক দিনের সম্পর্ক, তবুও যদি দেখেন আপনার প্রেমিক তার কোনো আত্মীয় বা বন্ধুদের সঙ্গে পরিচয় করাচ্ছে না তবে বিষয়টি জটিল। আর যদি দেখেন প্রেমিকের বন্ধুদের সঙ্গে আপনাকে আলাপ করাচ্ছে, একসঙ্গে খেতে যাচ্ছেন, ঘুরতে যাচ্ছেন তাহলে বুঝবেন আপনার প্রেমিক সৎ।

* সবকিছু করতে পারে
সত্যিকারের ভালোবাসার জন্য মানুষ অনেক কিছুই করতে পারে! ধরুন, রাত ৩টার সময়ও যদি আপনি আইসক্রিম খেতে চান, আপনার প্রেমিক সেটাই করবে! যদি সে সত্যিকার অর্থেই আপনাকে ভালোবাসে। আপনাকে সারপ্রাইজ দিতে ছুটি নিয়েও যখন তখন চলে আসতে পারেন। এর অর্থ হলো তিনি আপনাকে সত্যিই ভালোবাসেন।

আপনার মতামত জানানঃ