ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  ক্রাইম   »   মেহেরপুরে বাড়ীসহ জমি জবর দখল করার চেষ্টা

মেহেরপুরে বাড়ীসহ জমি জবর দখল করার চেষ্টা

September 16, 2016 - 3:07 PM

মেহেরপুর প্রতিনিধিঃ মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার দারিয়াপুরে বাড়ীসহ জমি জবর দখলের চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে । বাংলাদেশের জন্ম স্থান নামে খ্যাত-বিখ্যাত ঔতিহাসিক মুজিবনগর বদ্যনাথ তলা, বাংলাদেশ স্বাধীনতার সাধীন সূর্য উদীত হয় । সংবিধান এর শুরু শপথ গ্রহণের মাধ্যমে, ১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল মুজিব নগর সরকার গঠনের মাধ্যমে প্রাতিষ্ঠানিক ভাবে বাংলাদেশ নামের একটি রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হয়। আমাদের সেই সবুজ-শ্যামল সোনার বাংলাদেশকে ডিজিটাল বাংলায় রুপ দেওয়ার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে দেশেরই মুজিবনগর উপজেলার দারিয়াপুরে এক শ্রেণীর ভূমিদস্যু ১৯৫২ সালে বিনিময় সূত্রে ভারত হতে আগত মসুলমান করিম বক্স, এই জমিতে বসবাস করতে থাকে । অদ্যবদী করিমের ওয়ারিশ পুত্র সিরাজুল ইসলামসহ তার ৬ পুত্র সন্তান ও ২ কন্যা সন্তান এই বাড়িতে জন্ম গ্রহন করে । বর্তমানে ৮০ বছরের বৃদ্ধ সিরাজুল এই বাড়ীতে বসবাস করছে এবং ভোগদখলে আছে।
এলাকার আফেল উদ্দীন মোল্লা,ছলিম মোল্লা,আবুল কাশেম মাষ্টার, নাছিমা খাতুনসহ স্থাণীয়রা জানান, মুজিবনগর সিমান্ত কলেজ নামে একটি কলেজ প্রতিষ্ঠা করতে চাই স্থানীয় সচেতন মহল। কলেজের নির্মানের জন্য কোন স্থান না পাওয়াই, সিরাজুল ইসলাম তার বাড়ীর নিচ তলাতে কলেজ কে অস্থায়ী ভাবে ভাড়া দেয়। সেখানে কয়েক বছর কলেজ চালাই কলেজ র্কতৃপক্ষ। কলেজ নির্মানের জন্য সম্পত্তি পেলে, কলেজ সে বাসা ছেড়ে চলে আসে কলেজের নিজেস্ব জমিতে। বর্তমানে কলেজের নাম মুজিবনগর সরকারী ডিগ্রী কলেজ। এ কলেজের অধ্যক্ষ্য হামিদুল ইসলাম, স্বপন কুমার ,ভনা কামড়ি ,মনিরুল ,মোটা অংকের উৎকোচ নিয়ে ভূয়া জাল-জালিয়াতির কায়দায় বাড়ীসহ জমি জবর দখল করার চেষ্টা করছে । এদের সড়যন্ত্রের স্বীকার হয়ে অত্যান্ত দু:খ ও মানবিকতার বিবরণ জীবন অতিবাহিত করছে এই সম্পত্তির প্রকৃত মালিক সিরাজুল ইসলাম। সম্পত্তির প্রকৃত মালিকের নামে খাজনা দেওয়ার পরেও বাড়ী থেকে উচ্ছেদের পায়তারা অব্যাহত রেখেছে।20160912_123349
বাড়ীর মালিক সিরাজুল ইসলাম জানান, আমমোক্তার নামা দলিল নং ৫৭ তারিখ ২০/০৩/১৯৫২ খ্রিঃ ৭ই মার্চ ১৩৫৮ বাংলা সন। ০৮/১১/১৯২১ ইং তারিখে এই সম্পাত্তি পূর্বাধিকারী উপরিস্বত্বের মালিক পূর্বাধিকারী রাখাল দাস তরফদার ,পিতা কৈলাশ ঘোষ তরফদার ,সাং দারিয়াপুর ,গ্রামের (১)ভোলানাথ ঘোষ ,(২) ফটিক নাথ ঘোষ , উভয় পিতা হরিঘোষদের নামে সি এস খতিয়ান নং ৪৬১,৪৫৯, এস এ খতিয়ান ৬৭৩, ৬৮৫, আর এস ৩৮০৭, সিএস দাগ ৪১৯, এস এ ২৬১১, আর এস ৩৩০৫,৩৩০৭,৩৩০৮,জমির পরিমাণ যথাক্রমে ৩ একর ৬৫ শতক জমি উল্লেখিত রায়তি উঠবন্দী কোর্ফা এবং মৌখিক ইত্যাদি প্রথায় সি.এস রেকডীয় মালিক থাকাবস্থায় ১৯৫০ সালের প্রজাসত্ব আইনের ১১৬,১১৭,১৪৩,ধারা মোতাবেক আমমোক্তার নামা দলিল বলে তৎকালীন জেলা নদীয়া থানা তেহট্র ও সাং জিতপুর গ্রামের মরহুম করিম বক্স মন্ডল ,পিতা মরহুম মছের উদ্দিন মন্ডলের ভারত হতে প্রকৃত বাস্তচ্যূত মুসলমানের সহিত বাংলাদেশ হতে প্রকৃত হিন্দু বাস্তচ্যূত প্রথায় বিনিময় করে বৈধ স্বত্বে স্বত্ববান ও প্রকৃত দখলীকার লয়েন। বিগত এস এ রেকড আমলে উক্ত করিম বকস জীবিত থাকা কালে তার একমাত্র পুত্র সন্তান সিরাজুল ইসলামের নামে সঠিক ভাবে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রস্তুত হয়। প্রকাশ্য যে, রাখাল দাসের সমস্ত ত্যাজ্য সম্পত্তি ভোলানাথ ,ফটিকনাথ দীর্ঘ ২১/০১/১৯২১সন হইতে ২০/০৩/১৯৫২ তারিখ পর্যন্ত মালিক প্রমাণ করে যে, আমমোক্তার নামা দলির মূলে করিম বক্স এই সম্পত্তির প্রকৃত মালিক ও দখলীকারী হয়েছে। সে মতে আর এস খতিয়ান নং ২২ করিম বক্সের একমাত্র পুত্র সিরাজুল ইসলাম সংশোধন বা নীয় হইতেছে ২০/০৩/১৯৫২সালে সুধির কুমার তরফদার ,বিনয় কুমার তরফদার ,শিশির কুমার তরফদার ,সর্ব পিতা রাখাল দাস তরফদার এর সাথে নিয়ে বর্তমান জিতপুরে করিম বক্স মন্ডলের বাড়ী ও দালান ভোগদখল করছে । সেই সূত্রে সিরাজুল ইসলাম এই সম্পত্তির মালিক ও ভোগদখলীকারী হচ্ছে।
স্থানীয়রা আরো জানান, সিরাজুল ইসলাম এই বাড়ীতে ৮০বছর যাবত বসবাস করছে। বর্তমানে সিরাজুল ইসলামকে একা পেয়ে বিভিন্ন সময় বাড়ী থেকে উচ্ছেদের চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে কতিপয় ভূমিদস্যু মহল ।

আপনার মতামত জানানঃ