ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  Uncategorized   »   মেহেরপুরে এক সপ্তাহে নিহত-৪। আহত ৩০। তবুও চলছে অবৈধ যান। দর্শকের ভুমিকায় কর্তৃপক্ষ

মেহেরপুরে এক সপ্তাহে নিহত-৪। আহত ৩০। তবুও চলছে অবৈধ যান। দর্শকের ভুমিকায় কর্তৃপক্ষ

September 19, 2016 - 8:39 AM

মেহেরপুর প্রতিনিধি:মেহেরপুরে পৃথক সড়ক দূর্ঘটনায় গত এক সপ্তাহে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে অন্তত ৩০ জন। নিহতদের মধ্যে ব্যবসায়ী,সেনা সদস্য,আলগামন চালক ও গৃহবধু রয়েছে। একের পর এক সড়ক দূর্ঘটনায় আতংকিত হয়ে পড়েছে সড়কে চলাচলকারী সকল শ্রেনী পেশার মানুষ। দূর্ঘটনার হাত থেকে রেহায় পেতে কর্তৃপক্ষের দৃড় হস্তক্ষেপ কামনা করেছে এলাকা বাসি।
গত ১২ সেপ্টেম্বর সোমবার গাংনী উপজেলার তেরাইল নামক স্থানে চলন্ত বাসের ধাক্কায় স্যালোইঞ্জিন চালিত আলগামনের যাত্রী গরু ব্যবসায়ী রফিকুল ইসলাম নিহত হন। নিহত রফিকুল ইসলাম মেহেরপুর সদর উপজেলার গোভীপুর গ্রামের ফকির হোসেনের ছেলে। ১৫ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার মেহেরপুরের মদনাডাঙ্গায় যাত্রীবাহি বাসের ধাক্কায় আলগামন চালক গোলাম মোস্তফা নিহত হন। সে গাংনী উপজেলার পীরতলা গ্রামের নুর বকসের ছেলে। ১৭ সেপ্টেম্বর শনিবার গাংনী উপজেলার করমদী এলাকায় মোটর সাইকেলের সঙ্গে মাইক্রোবাসের সংঘর্ষে সুরুজ আলী নামের এক সেনা সদস্য নিহত হয়েছে। নিহত সুরজ আলী গাংনী উপজেলার চাঁদপুর গ্রামের ছদর আলীর ছেলে। ১৮ সেপ্টেম্বর রবিবার মেহেরপুর সদর উপজেলার আমঝুপি খামারের কাছে নছিমন উল্টে খয়েজান নেছা নামের এক গৃহবধু মারা যায়। সে সদর উপজেলার রাজনগর গ্রামের হায়াত আলীর স্ত্রী।
এদিকে স্যালো ইঞ্জিন চালিত ও অন্য যানবাহন গুলো বেপোরোয়া ভাবে চালানোর কারনে এসব দূর্ঘটনা ঘটছে বলে অভিমত প্রকাশ করেছে স্থানীয়রা। এছাড়া উঠতি বয়সের যুবকরাও বেপোরোয়া গতিতে মটরসাইকেল চালানোর কারনেও দূর্ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানিয়েছেন সড়ক দূর্ঘটনায় আহত কয়েকজন।
স্থানীয়রা জানায়, গাংনী বাজার বাসষ্টান্ড,গাংনী থানা মোড়,গাংনী কাথুলী মোড়,হেমায়েতপুর বাজার, বামুন্দী বাজার,সাহারবাটি বাজার,জোড়পুকুর বাজার,মেহেরপুর শহরের গুরুত্বপূর্ন কয়েক টি সড়ক.বাড়াদি বাজার,আমঝুপি বাজার,মুজিবনগরের কেদারগঞ্জ সহ জেলার বিভিন্ন স্থানে রাস্তার উপর বাস,ট্রাক,নছিমন আলগামন,পাখি ভ্যান ও গরু পরিবহনের ট্রলি রাখার কারনেও দূর্ঘটনা ঘটছে। রাস্তার উপর থেকে যানবাহন সরানো গেলে সড়ক দূর্ঘটনা অনেকটাই কমে আসতে পারে। এছাড়া স্যালো ইঞ্জিন চালিত যানবাহনের চালকদের প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি করেছে ভুক্তভুগীরা।
সড়ক দূর্ঘটনা রোধে কোন পদক্ষেপ না নেওয়ায় সমালোচনা মুখে পড়েছে মেহেরপুর বিআরটিএ কর্তৃপক্ষ। এ ব্যপারে বিআরটিএ মটরযান পরিদর্শক এসএম সবুজ এর সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নী।
সড়ক দূর্ঘটনা রোধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মেহেরপুর জেলার পুলিশ সুপার আনিছুর রহমান। তিনি আরো বলেন,দূর্ঘটনা রোধে প্রয়োজনে স্যালো ইঞ্জিন চালিত যানবাহন বন্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। সড়ক দূর্ঘটনা বর্তমানে জাতীয় সমস্যা হয়ে দাড়িয়েছে। এসময় সড়কের চলাচলকারীদের সতর্ক ভাবে চলাচল করার পরামর্শও দেন তিনি।

আপনার মতামত জানানঃ