ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  সারা বাংলা   »   মুন্সীগঞ্জের পানিবন্দী ২৯ হাজার পরিবার

মুন্সীগঞ্জের পানিবন্দী ২৯ হাজার পরিবার

জুলাই ২৬, ২০২০ - ১১:৩৪ পূর্বাহ্ণ

বন্যায় মুন্সীগঞ্জের লৌহজং, টঙ্গীবাড়ি, শ্রীনগর ও সদর উপজেলার ২১৩টি ইউনিয়নের ১৫৪ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এতে পানিবন্দী হয়ে পড়েছে প্রায় ২৯ হাজার পরিবারের মানুষ।

পদ্মার পানি মুন্সিগঞ্জের বিভিন্ন পয়েন্টে এখনও বিপদসীমার ৭২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বন্যায় আরও নতুন নতুন জনপদ এবং রাস্তা-ঘাট প্লাবিত হচ্ছে। পানিবন্দী হয়ে দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন হাজার হাজার মানুষ।

জেলা প্রশাসনের তথ্য, বানভাসি মানুষের জন্য মুন্সিগঞ্জে ৫৪টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। তবে মাত্র ৩৬৮টি পরিবার এসব আশ্রয় কেন্দ্রে উঠেছে। এর মধ্যে লৌহজং উপজেলায় ৩৫৭ পরিবার ও শ্রীনগর উপজেলায় ১১ পরিবার আশ্রয় কেন্দ্রে উঠেছে।

লৌহজং উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের ৪৯টি গ্রামের ১৩ হাজার ৫শ’ পরিবার এখন পানিবন্দী। এ উপজেলায় অশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে ২১টি। টঙ্গীবাড়ি উপজেলার ৪টি ইউনিয়নের ৪২টি গ্রামের ৫ হাজার ৭শ’ পরিবার এখন পানিবন্দী। এখানে অশ্রয়কেন্দ্র রয়েছে ৬টি। শ্রীনগর উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের ৫৩টি গ্রামের ৮ হাজার ৭শ’ ৪৯ পরিবার এখন পানিবন্দী। এ উপজেলায় অশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে ১২টি। সদর উপজেলার ২টি ইউনিয়নের ১০টি গ্রামের ৭শ’ ৬৮ পরিবার এখন পানিবন্দী। উপজেলায় অশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে ১৫টি।

সরকারিভাবে এ পর্যন্ত ২০২ মেট্রিক টন চাল, নগদ ৩ লাখ টাকা, ৩ হাজার ১শ’ প্যাকেট শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়া, শিশু খাদ্যের জন্য ১ লাখ টাকা ও গবাদি পশুর খাবারের জন্য ৩ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে

আপনার মতামত জানানঃ