ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  সারা বাংলা   »   ‘ভাসানচর মানুষের বাসযোগ্য’

‘ভাসানচর মানুষের বাসযোগ্য’

নভেম্বর ৩০, ২০২০ - ৩:২৫ অপরাহ্ণ

নোয়াখালীর ভাসানচর মানুষের বসবাসের জন্য সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। আন্তর্জাতিক ও দেশীয় বিভিন্ন সংস্থার সদস্যরা এত দিন রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে স্থানান্তরে আপত্তি জানালেও সোমবার (৩০ নভেম্বর) সরেজমিনে পরিদর্শনের পর মনোভাব বদলেছেন।

প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় পর্যাপ্ত ব্যবস্থাতেও তারা সন্তুষ্ট প্রকাশ করেছেন। কক্সবাজারের বিভিন্ন ক্যাম্প থেকে এক লাখ রোহিঙ্গাকে স্থানান্তর করা হবে এখানে। বঙ্গোপসাগরের বুকে ১৩ হাজার একর জমির উপর এক খণ্ড সবুজ দ্বীপ ভাসানচর। যেখানে মিয়ানমার থেকে সেনাবাহিনীর নির্যাতনের শিকার হয়ে আসা কক্সবাজারে আশ্রয় নেওয়া এক লাখ রোহিঙ্গাকে সরিয়ে নেওয়ার ব্যবস্থা করছে সরকার। তবে প্রাকৃতিক দুর্যোগ, উন্নত যোগাযোগব্যবস্থা ও নিরাপত্তাসহ নানা অজুহাতে দীর্ঘদিন ধরে রোহিঙ্গাদের হস্তান্তরে আপত্তি জানিয়ে আসচিল আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলো।

এমন বাস্তবতায় সোমবার সরেজমিনে ভাসানচর পরিদর্শনে যান ২২টি দেশীয় ও আন্তর্জাতিক সংস্থার সদস্যরা।

দীর্ঘ ২ ঘণ্টা নানা অবকাঠামো ঘুরে এমএসআই এনজিওয়ের নির্বাহী মো. জোবায়ের জানান ভাসানচর মানুষের বাসযোগ্য।

ঝড় ও জলোচ্ছ্বাস মোকাবিলায় ভাসানচরে রয়েছে একহাজার মানুষের ধারণক্ষমতার ১২০টি সাইক্লোন সেল্টার। চারপাশে ৯ ফুট উঁচু ১৩ কিলোমিটার শক্তিশালী বাধ ও ম্যানগ্রোভ তৈরি করা হয়েছে।

পণ্যপরিবহন ও মানুষ পারাপারের জন্য গড়ে তোলা হয়েছে চারটি জেটি। আছে উন্নত যোগাযোগব্যবস্থা। এতে সন্তুষ্ট সংস্থাগুলোর প্রতিনিধিরা।

এনজিও সংস্থা ছাওয়াবের প্রোগ্রাম কোর্ডিনেটর এমদাদুল ইসলাম বলেন, এখন যে ব্যবস্থা আছে আজ বা কাল ব্যবস্থাপনা আরও বেড়ে যাবে।এখানে তাদের জন্য অনেক নিরাপদ ব্যবস্থা আছে। তাদের এখানে আসা উচিত আর তারা এখানে অনেক ভালো থাকবে।

সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে নৌবাহিনীর তত্ত্বাবধানে নির্মিত হয়েছে এই মেগাপ্রকল্পটি। যেখানে ১২০টি ক্লাস্টার গ্রামে রাখা হবে এক লাখ রোহিঙ্গাকে।

Tags:

আপনার মতামত জানানঃ