ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  সারা বাংলা   »   ভাসানচর পরিদর্শনে মুগ্ধ রোহিঙ্গা প্রতিনিধিদল

ভাসানচর পরিদর্শনে মুগ্ধ রোহিঙ্গা প্রতিনিধিদল

সেপ্টেম্বর ৬, ২০২০ - ৮:২৩ অপরাহ্ণ
রোহিঙ্গা প্রতিনিধিদল

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য গড়ে তোলা আবাসন প্রকল্প দেখতে ৪০ সদস্যের একটি রোহিঙ্গা প্রতিনিধিদল ভাসানচরে গিয়েছেন। এ প্রতিনিধিদল ভাসানচরের অবকাঠামো ও সামগ্রিক পরিবেশ দেখে মুগ্ধ হয়েছেন।

সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে শনিবার (৫ সেপ্টেম্বর) ভোরে উখিয়া থেকে তারা চট্টগ্রাম পৌঁছান। সেখান থেকে সমুদ্রপথে নৌবাহিনীর তত্ত্বাবধানে সন্ধ্যায় ভাসানচরে পৌঁছান। উখিয়া-টেকনাফের ৩৪টি ক্যাম্পের ৪০ জন রোহিঙ্গা নেতা ভাসানচরের অবস্থা ও পরিবেশ এবং পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে যান। আগামী ৮ সেপ্টেম্বর তাদের ফিরে আসার কথা রয়েছে। সরকারের আশা, রোহিঙ্গা নেতারা দেখে এসে অন্যদের বোঝালে তারা ভাসানচর যেতে রাজি হবেন।

প্রতিনিধিদলের এক সদস্য মোহাম্মদ হারুন গণমাধ্যমকে জানান, ভাসানচরের আবাসন প্রকল্প তার খুব ভালো লেগেছে। এখানে মসজিদ, বাচ্চাদের জন্য স্কুল, স্বাস্থ্যকেন্দ্র, খেলার মাঠ ছাড়াও প্রতিটি আবাসন প্রকল্পের ভেতর পুকুর রয়েছে। সাগরের মাঝে পুকুরের পানি খুবই সুস্বাদু। যা তার কল্পনার বাইরে।

ভাসানচর পরিদর্শনে যাওয়া মোহাম্মদ হারুন উখিয়ার ১০১৭ রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বাসিন্দা। রোহিঙ্গা প্রতিনিধিদলের এই সদস্য জানান, তার মতো দলের অধিকাংশ সদস্য আবাসন প্রকল্পের পরিবেশ দেখে সন্তুষ্ট।

ভাসানচর পরিদর্শনে যাওয়া রোহিঙ্গ প্রতিনিধিদলে রয়েছেন বিভিন্ন ক্যম্পের হেড মাঝি, মাঝি এবং মসজিদের ইমাম। তারা ভাসানচর পরিদর্শন শেষে কক্সবাজার ফিরে রোহিঙ্গাদের কাছে সেখানকার অবস্থা বর্ণনা করবেন।

শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার (আরআরআরসি) সূত্র জানিয়েছে, রোহিঙ্গা প্রতিনিধিদলের সদস্যদের ভাসানচরের আবাসন প্রকল্প পরিদর্শন করানো একটি মোটিভেশনাল কার্যক্রম। ভাসানচরে গড়ে তোলা আবাসন প্রকল্প পরিস্থিতি অবহিত করার জন্য রোহিঙ্গা শরণার্থীশিবিরের বাছাই করা ৪০ ব্যক্তিকে এখানে পাঠানো হয়েছে। প্রতিনিধিদলের সদস্যরা সরেজমিনে ভাসানচর আবাসন প্রকল্প পরিদর্শন করে সেখানে থাকা বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা সম্পর্কে অবহিত হবেন। সরকারের আশা, রোহিঙ্গা নেতারা দেখে এসে অন্যদের বোঝালে তারা ভাসানচর যেতে রাজি হবেন।

চট্টগ্রাম থেকে রোহিঙ্গা প্রতিনিধিদলকে ভাসানচরে নিয়ে যাওয়া নৌবাহিনীর জাহাজের কর্মকর্তা কমোডর মামুন গণমাধ্যমকে জানান, শনিবার সন্ধ্যার আগে ভাসানচরে পৌঁছান। সকাল থেকে প্রতিনিধিদলের সদস্যরা আবাসন প্রকল্পের একাংশের বিভিন্ন অংশ ঘুরে দেখেন। আগামীকাল বাকি অংশ দেখবেন।

বঙ্গোপসাগরের ভাসানচরে সরকার প্রায় ৩ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে একটি আবাসন প্রকল্প নির্মাণ করেছে, যাতে কমপক্ষে ১ লাখ রোহিঙ্গা বসবাস করতে পারবে। আবাসন প্রকল্প ঘিরে প্রায় ১৩ কিলোমিটার বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাধ নির্মাণ করা হয়েছে। একই সাথে ১২০টি সাইক্লোন শেল্টার, প্রয়োজনীয় শিক্ষা ও চিকিৎসা অবকাঠামো নির্মাণ করা হয়েছে।

Tags:

আপনার মতামত জানানঃ