ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  ক্রাইম   »   ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গৃহবধূকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গৃহবধূকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন

January 18, 2021 - 6:03 PM

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই সন্তানের জননী আপন ভাতিজিকে নির্মমভাবে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করেছে তারই আপন চাচা সৌদী প্রবাসী হুমায়ুন মিয়া।

গতকাল রোববার (১৭ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়নের শিলাউর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় পর নির্যাতিতা গৃহবধু চাচার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।

নির্যাতিতা গৃহবধু শান্তা আক্তার জানান, তিনি শহরের মৌড়াইল এলাকার ভাড়া বাসায় থাকেন। সম্প্রতি তিনি তার বাবার বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়নের শিলাউর গ্রামে বেড়াতে যান। সেখানে তার শিশু সন্তানের সঙ্গে গতকাল দুপুরে আপন চাচা হুমায়ুন মিয়ার ঝগড়া হয়। পরে এ নিয়ে তার চাচা তাকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করেন। সন্ধ্যার দিকে শান্তা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জেলা সদরের দিকে আসার পথে তার আপন চাচা হুমায়ুন মিয়া কয়েকজন মুখোশপরা সন্ত্রাসী নিয়ে পথ রোধ করে। পরে তার নাক-মুখে কাপড় দিয়ে চেপে ধরেন। একপর্যায়ে মাথায় গুরুতর আঘাতসহ হাত পা ও শরীরের বিভিন্ন অঙ্গে ব্লেড দিয়ে পুরো শরীর ক্ষত বিক্ষত করে হত্যার চেষ্টা করেন চাচা হুমায়ুন। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় শান্তা চিৎকার শুরু করলে তার মা রওশন আরা ও স্থানীয়রা এগিয়ে এসে শান্তাকে উদ্ধার করে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

শান্তার মা রওশন আরা জানান, আমার মেয়েকে অমানুষিকভাবে নির্যাতন করা হয়েছে।

গৃহবধূ শান্তা ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতালের সার্জারি ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। চিকিৎসক ডা. শওকত হোসেন জানান, গৃহবধুকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তার অবস্থা স্থিতিশীল। আপাতত তার অবস্থা শংকামুক্ত।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রহিম জানান, ঘটনা সর্ম্পকে অবগত আছি। অভিযোগ পেলে দোষী ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার মতামত জানানঃ