ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  সারা বাংলা   »   বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিনের শাহাদতবার্ষিকী আজ

বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিনের শাহাদতবার্ষিকী আজ

December 10, 2016 - 7:01 AM

নোয়াখালী প্রতিনিধি : বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিনের শাহাদতবার্ষিকী আজ। ১৯৭১ সালের ১০ ডিসেম্বর মাতৃভূমি বাংলাকে স্বাধীন করতে নিজের জীবনকে উৎসর্গ করেছিলেন তিনি।

তার শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষে নোয়াখালী জেলা প্রশাসন, সোনাইমুড়ি উপজেলা প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধ সংসদ, রুহুল আমিন গ্রন্থাগার ও স্মৃতি জাদুঘরের উদ্যোগে নানা কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছে।

কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে জাদুঘর প্রাঙ্গণে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, বীরশ্রেষ্ঠর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, আলোচনা সভা, মিলাদ মাহফিল ও দুস্থদের মধ্যে খাবার বিতরণ।

বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিন নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলায় বাগপাঁচড়া (বর্তমান রুহুল আমিন নগর) গ্রামে ১৯৩৪ সালে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মোহাম্মদ আজহার পাটোয়ারী এবং মাতার নাম জুলেখা খাতুন। রুহুল আমিন ১৯৫০ সালের পর নাবিক হিসেবে পাকিস্তান নৌবাহিনীতে যোগ দেন।

মুক্তিযুদ্ধে ২ নম্বর সেক্টরের অধীন যুদ্ধ করেন তিনি। চূড়ান্ত বিজয়ের ছয় দিন আগে খুলনায় রূপসা নদীতে দায়িত্বরত অবস্থায় পাকিস্তান বিমানবাহিনীর গোলায় তিনি শহীদ হন।

মুক্তিযুদ্ধে বীরোচিত ভূমিকা ও মহান আত্মত্যাগের জন্য তাকে সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মাননা বীরশ্রেষ্ঠ খেতাবে ভূষিত করা হয়।

২০০৮ সালের প্রথম দিকে বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিনের নামে ৫ কিলোমিটার রাস্তার নামকরণ করা হয়। একই বছর রুহুল আমিনের বাড়ির সীমানায় গড়ে তোলা হয় ‘বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিন জাদুঘর ও গ্রন্থগার’। এটির উদ্বোধন করেন তৎকালীন সেনা প্রধান মঈন ইউ আহমেদ। ওই সময় তার বাড়িতে যাওয়ার রাস্তাটিরও নামকরণ করা হয় বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিন সড়ক।

এর আগে সালে ১৯৯৪ এলাকার বিশিষ্ট শিক্ষা অনুরাগী আবুল কাশেম এলাকার কয়েকজন ব্যক্তিকে নিয়ে গড়ে তোলেন বীরশ্রেষ্ঠ রুহুল আমিন একাডেমি।

আপনার মতামত জানানঃ