ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  অর্থনীতি   »   বাড়ছে চালের দাম

বাড়ছে চালের দাম

October 1, 2016 - 11:49 AM

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীর পাইকারি বাজারে চাল সরবরাহে কোনো সংকট না থাকলেও গত এক মাস ধরে লাগামহীন বেড়ে চলেছে সব ধরনের চালের দাম।

শনিবার রাজধানীর মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেট, কারওয়ান বাজারসহ কয়েকটি চালের বাজার ঘুরে দেখা যায়, এক মাসের ব্যবধানে পাইকারি বাজারে মিনিকেট চাল বস্তা বস্তাপ্রতি ৬০-১০০ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ২২৫০-২৩০০ টাকা দরে। একটু খারাপ মানের মিনিকেট চাল বস্তা প্রতি বিক্রি হচ্ছে ২১০০ থেকে ২১৫০ টাকায়। এ হিসেবে প্রতি কেজি চালের দাম পাইকারি বিক্রি হচ্ছে ৪২-৪৬ টাকা। প্রতিবস্তা ভালো মানের নাজিরশাইল চাল বিক্রি হচ্ছে ২৪৮০ থেকে ২৫০০ টাকায়।

এ ছাড়া পাইকারি বাজারে মোটা চাল ৫-৬ টাকা বেড়ে কেজি প্রতি বিক্রি হচ্ছে ৩৩ থেকে ৩৪ টাকা, বিআর-২৮ (লতা নামে পরিচিত) ৩৬-৪০ টাকা, কাটারিভোগ ৬৭-৭০, বাসমতি ৫৮-৬৪, সুগন্ধি চাল ৯০-১০০ টাকা এবং প্যাকেটজাত সুগন্ধি চাল ১০০-১১০ টাকা বিক্রি হচ্ছে।

তবে বাজারভেদে এর চেয়ে এক-দুই টাকা বেশি ও কম দরে চাল বিক্রি হতে দেখা গেছে।

এদিকে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে খুচরা বাজারে প্রতি কেজি ভালো মানের সরু চাল মিনিকেট ও নাজির শাইল বিক্রি হচ্ছে ৪৮ থেকে ৫৬ টাকা দরে এবং মোটা চাল স্বর্ণা ৩৬ থেকে ৩৮ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

চালের দাম বাড়ার বিষয়ে কারওয়ান বাজারের আবদুল আলী ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী মোক্তার হোসেন রাইজিংবিডিকে বলেন, সরকারি ধান-চাল সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু হওয়ায় মিল ও চাতাল পর্যায়ে মজুদ প্রবণতার কারণে পাইকারি ও খুচরা বাজারে চালের দাম বেড়েছে।

এ ছাড়া ট্রাকের ভাড়া বেড়ে যাওয়ায় চালের দাম বেড়েছে। দিনাজপুর থেকে ঢাকা পর্যন্ত ট্রাকের ভাড়া ছয় থেকে সাত হাজার টাকা বেড়েছে। এখন এক ট্রাক চাল আনতে ২২-২৫ হাজার টাকা ভাড়া দিতে হয়।

মোহাম্মদপুর কৃষি মার্কেটের চাল বিক্রেতা আনোয়ার চালের দাম বাড়ায় অভিযোগ করে বলেন, কিছুদিন আগে হয়ে যাওয়া বন্যা, বৃষ্টি ও ধানের বাজার বাড়তি, আমদানি চালের ওপর ভ্যাটসহ বিভিন্ন কারণেই চালের দাম বেড়েছে।

পাইকারি ও খুচরা বাজারে চালের দাম যাই হোক না কেন, শেষ পর্যন্ত এই বাড়তি দাম গুনতে হচ্ছে সাধারণ ক্রেতাদেরকেই।

মোহাম্মদপুরের বাসিন্দা ওয়াজেদ আলী জানান, এক মাসের ব্যবধানে চালের দাম অনেক বেড়েছে। কেজিতে এক-দুই টাকা বাড়তে পারে, কিন্তু দোকানিরা নানা ওজুহাত দেখিয়ে হঠাৎ করে এক লাফে পাঁচ-ছয় টাকা বাড়িয়ে দিয়েছেন।

আপনার মতামত জানানঃ