ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  জাতীয়   »   বাংলাদেশে ব্যবসা সম্প্রসারণে আগ্রহ রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার উদ্যোক্তাদের

বাংলাদেশে ব্যবসা সম্প্রসারণে আগ্রহ রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার উদ্যোক্তাদের

September 1, 2016 - 2:31 PM

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক : বাংলাদেশে ব্যবসা সম্প্রসারণে আগ্রহ রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার উদ্যোক্তাদের। এক্ষেত্রে যোগ্য ব্যবসায়ী অংশীদার খুঁজে পেতে সহযোগিতা করবে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই)।

এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার ডিসিসিআইয়ের সঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিনিধিদলের মধ্যে বাণিজ্য আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ডিসিসিআই মিলনায়তনে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই), কোরিয়া ট্রেড ইনভেস্টমেন্ট প্রমোশন এজেন্সি (কোটরা) এবং বাংলাদেশস্থ দক্ষিণ কোরিয়ার দূতাবাস যৌথভাবে দক্ষিণ কোরিয়ার মেশিনারিজ প্রতিনিধিদলের সঙ্গে এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

ডিসিসিআই সভাপতি হোসেন খালেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনায় বাংলাদেশস্থ কোটরার মহাপরিচালক জিনহাক হোর, কোরিয়ার বাণিজ্য প্রতিনিধিদলের নেতা মা সিউং রকের নেতৃত্বে আগত ৬টি কোরিয়ান কোম্পানির প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে ডিসিসিআই সভাপতি হোসেন খালেদ কোরীয় প্রতিনিধিদলকে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের দক্ষিণ কোরিয়া সহযোগিতা আরো সুদৃঢ় করার জন্য আরো বেশি হারে বিনিয়োগের আহ্বান জানান।

তিনি দক্ষিণ কোরিয়ার উদ্যোক্তাদের তাদের শিল্প-কারখানা স্থানান্তরের ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে অগ্রাধিকার প্রদানের আহ্বান জানান।

ঢাকা চেম্বারের সভাপতি বলেন, কোরিয়ার উদ্যোক্তাদের বাংলাদেশে ব্যবসা সম্প্রসারণে যোগ্য ব্যবসায়ী অংশীদার খুঁজে পেতে ডিসিসিআইয়ের পক্ষ হতে সর্বাত্মক সহযোগিতা দিবে।

তিনি বলেন, গত ১৫ বছর ধরে ৬ শতাংশ হারে জিডিপি প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে এবং বর্তমানে বাংলাদেশের অর্থনীতি বেশ শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছে।

তিনি বলেন, প্রতিবছর বাংলাদেশ ৩০ লাখ লোক কর্মক্ষেত্রে প্রবেশ করছে। তিনি বিশাল এ শ্রম বাজারের সুযোগ নিয়ে চীনের উদ্যোক্তাদের আরো বেশি হারে বিনিয়োগের আহ্বান জানান।

ডিসিসিআই সভাপতি বলেন, সম্প্রতি সরকার দেশে ১০০টি নতুন অর্থনৈতিক অঞ্চল স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে, যেখানে দক্ষিণ কোরিয়ার উদ্যোক্তারা তৈরি পোষাক, টেক্সটাইল, ফার্মাসিউটিক্যাল, পাট ও পাটজাত পণ্য, সিরামিক চামড়া, তথ্য-প্রযুক্তি ও পাদুকা শিল্পে বিনিয়োগের উজ্জ্বল সম্ভাবনা রয়েছে।

এর প্রেক্ষিতে বাংলাদেশস্থ কোটরার মহাপরিচালক জিনহাক হোর, এ ধরনের বাণিজ্য আলোচনা সভা আয়োজনে সহযোগিতা প্রদানের জন্য ডিসিসিআইকে ধন্যবাদ জানান।

তিনি কোরিয়ার বিভিন্ন শিল্প-কারখানায় ইতোমধ্যে ব্যবহৃত মেশিনগুলো বাংলাদেশে ব্যবহারের উজ্জ্বল সম্ভাবনা রয়েছে।

তিনি জানান, এ ধরনের যন্ত্রপাতির ব্যবহার বাংলাদেশে বাড়ানোর লক্ষ্যে কোরিয়া ট্রেড ইনভেস্টমেন্ট প্রমোশন এজেন্সি (কোটরা) ইতোমধ্যে কাজ করছে এবং ভবিষ্যতে এ ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকবে।

তিনি জানান, গত নভেম্বরে দক্ষিণ কোরিয়ায় এ ধরনের যন্ত্রপাতির ব্যবহার বিষয়ক মেলার আয়োজন করা হয়, যেখানে ১১টি বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করে এবং কোরিয়া যন্ত্রপাতিসমূহ নিজেদের শিল্প-কারখানায় ব্যবহারে আগ্রহ প্রকাশ করেন।

তিনি আশা প্রকাশ করেন, বাংলাদেশ ও কোরিয়ার দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য উন্নয়নে এ ধরনের যন্ত্রপাতির ব্যবহার আরো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

বাণিজ্য আলোচনা সভার পর অনুষ্ঠিত ওয়ান-টু-ওয়ান মিটিং-এ প্রায় ৫০টি বাংলাদেশি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা কোরিয়ান কোম্পানির প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন।

ডিসিসিআই ঊর্ধ্বতন সহ-সভাপতি হুমায়ুন রশিদ, সহ-সভাপতি আতিক-ই-রাব্বানী এফসিএ, পরিচালক এ কে ডি খায়ের মোহাম্মদ খান, সেলিম আকতার খান, এস রুমি সাইফুল্লাহ এবং মহাসচিব এএইচএম রেজাউল কবির এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত জানানঃ