ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  জাতীয়   »   বর্জ্য অপসারণে ডিএনসিসির কন্ট্রোল রুম চালু

বর্জ্য অপসারণে ডিএনসিসির কন্ট্রোল রুম চালু

September 10, 2016 - 12:50 PM

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) এলাকায় কোরবানির বর্জ্য দ্রুত অপসারণের কার্যক্রম তদারকি, এ বিষয়ে অভিযোগ ও পরামর্শ দেওয়ার জন্য ৭টি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে।

শনিবার ডিএনসিসি কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ডিএনসিসি মেয়র আনিসুল হক।

কোরবানির পশু জবাইয়ের পর বর্জ্য অপসারণ হয়নি, দুর্গন্ধে হাঁটতে সমস্যা হচ্ছে, এমন পরিস্থিতিতে দ্রুত কন্ট্রোল রুমে ফোন করার পরামর্শও দিয়েছেন তিনি।

নাগরিক সুবিধা নিশ্চিত করার জন্য ডিএনসিসির ৫টি অঞ্চল ভাগ করে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। এ ছাড়া দুটি কেন্দ্রীয় কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে।

কোরবানির বর্জ্য সমস্যার জন্য অঞ্চল-১ এর আওতায় উত্তরা, কুড়িল, খিলক্ষেত, টানপাড়া, জোয়ার সাহারা, নিকুঞ্জ, আজমপুর, আব্দুল্লাহপুর এলাকার বাসিন্দারা ০১৭১৭-১০২০২৫ নম্বরে ফোন করলে বর্জ্য অপসারণে সহায়তা পাবেন।

অঞ্চল-২ এর আওতায় মিরপুর স্টেডিয়াম এলাকা, পল্লবী, মিরপুর-১, ১০, ১২, ও ১৪ নম্বর এলাকার বাসিন্দাদের জন্য ফোন নম্বর ০১৭১১-৫৭৭৪৭৪।

অঞ্চল-৩ এর আওতায় গুলশান, বনানী, বাড্ডা, নর্দা, নাখালপাড়া, মগবাজার, রামপুরা ও বনশ্রী এলাকার বাসিন্দাদের জন্য ফোন নম্বর ০১৯২৩-১১৩৬৩৬।

অঞ্চল-৪ এর আওতায় শেওড়াপাড়া, রোকেয়া স্মরণী, কল্যাণপুর, দারুস সালাম এলাকার বাসিন্দাদের জন্য ফোন নম্বর ০১৭১২-৫৮৪০৮৬।

অঞ্চল-৫ এর আওতায় কারওয়ান বাজার, ফার্মগেট, মনিপুরীপাড়া, তেজকুনি বাজার, লালমাটিয়া ও মোহাম্মদপুর এলাকার বাসিন্দাদের জন্য ফোন নম্বর ০১৭১১-৩১৩২৮৯।

এ ছাড়া দুটি কেন্দ্রীয় কন্ট্রোল রুমের একটি মিরপুরে যার ফোন নম্বর ০২-৯০০৪৭৩৪ এবং দ্বিতীয়টি গুলশান ০২-৯৮৬১৩৯৩ নম্বরে ফোন করলে বর্জ্য সমস্যার সমাধান মিলবে বলে জানান মেয়র।

পাশাপাশি ডিএনসিসির বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের অস্থায়ী কন্ট্রোল রুমেও ফোন করা যাবে। যার নম্বর ৯৮৫৬৭০৯ ও ৯৮৫৮০০৬।

এ বিষয়ে মেয়র বলেন, আমরা সবার সহযোগিতা পেলে নির্ধারিত ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই সব বর্জ্য অপসারণ করতে পারবো। এ ছাড়া কোরবানি বিষয়ে প্রয়োজনীয় করণীয় সংবলিত ৫ লাখ ৫০ হাজার লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে।

তিনি জানান, এবার ঢাকা উত্তরে কোরবানির জন্য ৬৪৮টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। এরমধ্যে ১৯৬টি স্থানে সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে ইমাম ও কসাইয়ের ব্যবস্থা রাখা হবে।

কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণে ঢাকা উত্তরে প্রায় এক লাখ পলিব্যাগ সরবরাহ করা হবে বলেও সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।

এ ছাড়া বর্জ্য অপরাসণের জন্য দুই হাজার ২২৫ জন নিয়মিত কর্মীর সঙ্গে আরো এক হাজার ৫ জন অতিরিক্ত পরিচ্ছন্নতাকর্মী থাকবে বলেও জানান মেয়র।

আপনার মতামত জানানঃ