ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  Uncategorized   »   বরিশালের মা-ইলিশ সংরক্ষণে অভিযানে

বরিশালের মা-ইলিশ সংরক্ষণে অভিযানে

October 12, 2016 - 9:30 AM

বরিশাল : বরিশালের নদ-নদীতে মা-ইলিশ সংরক্ষণে অভিযানে নেমেছে মৎস্য অধিদপ্তর, জেলা প্রশাসন, নৌবাহিনী, কোস্টগার্ড, নৌ-পুলিশ, র‌্যাবসহ সব আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টার পর থেকে ২২ দিনের জন্য সব নদ-নদীতে ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ করেছে সরকার।

এদিকে মঙ্গলবার শেষ দিনে কর্মব্যস্ত ছিল বরিশালের অন্যতম মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র পোর্ট রোড এলাকা। দিনভর ক্রেতা-বিক্রেতা ও জেলেদের উপচেপড়া ভিড় ছিল এই মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রে।

আগামী ২২ দিন ইলিশ ধরা যাবে না। তাই সংগৃহীত ইলিশ বরফজাত কিংবা স্থানীয় ও দূরের বাজারগুলোতে সরবরাহ কাজে ব্যস্ত ছিল মোকাম মালিক ও শ্রমিকরা। এ কারণে ইলিশের দামও তুলনামূলক কম ছিল।

বরিশাল মৎস্য আড়তদার সমিতির সাধারণ সম্পাদক নীরব হোসেন টুটুল জানান, টানা ২২ দিন এই অবতরণ কেন্দ্রে ইলিশ দেখা যাবে না। তাই মঙ্গলবার যে যার মতো ইলিশ বিক্রি করেছে। ফলে এক আড়ৎ থেকে অন্য আড়তের মূল্যে অনেক তারতম্য রয়েছে।

তিনি আরো বলেন, জেলেরা যথাযথভাবে সরকারের নিষেধাজ্ঞা মেনে চললে দেশের নদ-নদীতে প্রচুর ইলিশ পাওয়া যাবে। এতে করে দেশ লাভবান হবে।

এদিকে এই প্রথমবারের মতো টানা ২২ দিন ইলিশ ধরা বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে সরকার। সে অনুযায়ী মঙ্গলবার দিবারাত ১২টার পর থেকে ২ নভেম্বর পর্যন্ত এ নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকবে।

এ ব্যাপারে বরিশাল জেলা মৎস্য অধিদপ্তরের পরিচালক মো. আজিজুল হক জানান, মা-ইলিশ রক্ষার্থে সরকারে নিষেধাজ্ঞা যথাযথভাবে কার্যকর করতে ইতিমধ্যে মৎস্য অধিদপ্তর ছাড়াও জেলা প্রশাসন, বাংলাদেশ নৌবাহিনী, কোস্টগার্ড, নৌ-পুলিশ, র‌্যাবসহ সব আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী অভিযানে নেমেছে।

তিনি বলেন, ইতিমধ্যে এ বিষয়ে মাইকিং, হ্যান্ডবিল, পোস্টারসহ সবধরনের প্রচারণার কাজ শেষ হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, প্রধান প্রজনন মৌসুমে মা-ইলিশ সংরক্ষণ অভিযানে ১২ অক্টোবর থেকে ২ নভেম্বর পর্যন্ত ২৭ জেলা ও সাত হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকায় ইলিশ ধরা নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এই ২২ দিন প্রজননক্ষেত্র ছাড়াও সারাদেশের মাছঘাট, মৎস্য আড়ত, হাটবাজার ও চেইনশপে অভিযান চালানো হবে।

বরিশাল বিভাগীয় মৎস্য অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. বজলুর রশীদ জানান, মা-ইলিশ সংরক্ষণ অভিযানের আওতায় বরিশাল বিভাগের মধ্যে সব কটি জেলার নদ-নদী রয়েছে। তাই বরিশাল, ভোলা, পটুয়াখালী, বরগুনা ও পিরোজপুর, ঝালকাঠিতে এ বিষয়ে বিশেষ নজরদারির জন্য প্রশাসনকে অবহিত করা হয়েছে।

আপনার মতামত জানানঃ