ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  Uncategorized   »   বরিশালের বানারীপাড়ায় সন্ধ্যা নদীতে ডুবে যাওয়া লঞ্চটি উদ্ধার

বরিশালের বানারীপাড়ায় সন্ধ্যা নদীতে ডুবে যাওয়া লঞ্চটি উদ্ধার

September 22, 2016 - 5:33 AM

বরিশাল : বরিশালের বানারীপাড়ায় সন্ধ্যা নদীতে ডুবে যাওয়া লঞ্চটি উদ্ধার হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল পৌনে ৯টার দিকে লঞ্চটি উদ্ধার করে উদ্ধারকারী জাহাজ ‘নির্ভীক’। এ সময় লঞ্চের মধ্যে চার শিশুর লাশ পাওয়া যায়। এ ঘটনায় ১৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

এখনো ১০ জন নিখোঁজ রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। তবে স্থানীয়দের দাবি, নিখোঁজ সংখ্যা ২০ জনের বেশি।

এর আগে বৃহস্পতিবার ভোর ৪টার দিকে লঞ্চডুবির ঘটনাস্থল বানারীপাড়ার দাসেরহাটের মসজিদবাড়ি ঘাটে পৌঁছায় উদ্ধারকারী জাহাজ ‘নির্ভীক’। তারা সকাল ৮টার দিকে উদ্ধারকাজ শুরু করে। মাত্র ৪০ মিনিটে ডুবে যাওয়া লঞ্চটি উদ্ধার করা সম্ভব হয়।

বরিশাল ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক ফারুক হোসেন বলেন, সকাল পৌনে ৯টার দিকে লঞ্চটি উদ্ধার হয়েছে। এ সময় চার শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়।

বানারীপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জিয়াউল আহসান জানান, লঞ্চডুবির ঘটনায় তালিকা অনুযায়ী এখনো ১০ যাত্রী নিখোঁজ রয়েছে। তারা হলেন- খুকুমনি (২৫), আ. মজিদ হাওলাদার (৪৫), হামিদা বেগম (৪০), নাফফি (৯), কল্পনা রানী (২৫), মারিয়া বেগম (৩), রুহুল আমিন (৩০), মুজা মোল্লা (৬২), দিদার (৭) ও রাফি (৭)।

এর আগে বুধবার রাত ৯টার দিকে নৌ বাহিনীর লে. আরিফুর ইসলামের নেতৃত্বে ১৪ সদস্যের দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে নৌবাহিনীর সদস্য, ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দল ও বিআইডব্লিটিএর কর্মীরা উদ্ধার অভিযান শুরু করে।

এদিকে স্থানীয় সৈয়দকাঠী ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মন্নান মৃধা দাবি করেন, এখনো ২০ জনের বেশি যাত্রী নিখোঁজ রয়েছে।

অপরদিকে লঞ্চডুবির ঘটনায় অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জাকির হোসেনকে প্রধান করে ৯ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে সাত কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, বুধবার দুপুর ১২টার দিকে বানারীপাড়া থেকে ‘এমএল ঐশী’ নামের একটি লঞ্চ উজিরপুর যাওয়ার পথে সন্ধ্যা নদীর দাসেরহাটের মসজিদবাড়ি ঘাটে যাত্রী ওঠানোর সময় ডুবে যায়। এ ঘটনায় নারী-শিশুসহ ১৮ জনের মৃত্যু হয়।

নিহতরা হলেন- সুকদেব (৪০), শান্তা আক্তার (১০), রাজ্জাক হাওলাদার (৬০), ফিরোজা বেগম (৫০), রেহেনা বেগম (৩০), কোহিনূর বেগম (৪৫), সাগর (২৫), সালেহা বেগম (৬০), মোজাম্মেল মোল্লা (৬০), জয়নাল হাওলাদার (৫৮), মিলন ঘরামী (৪০), রাবেয়া বেগম (৪৫), হীরা বেগম (২৫), মনোয়ারা বেগম, সাফওয়ান (৩), রিয়াদ (৪), মাইশা (৪) ও মাফিয়া আকতার (৩)।

আপনার মতামত জানানঃ