ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  লাইফস্টাইল   »   ফ্রিজে খাবার রাখার সঠিক নিয়ম

ফ্রিজে খাবার রাখার সঠিক নিয়ম

অক্টোবর ২১, ২০২০ - ৭:২৬ অপরাহ্ণ

গরমে পরিবারের পরমবন্ধু ফ্রিজ। আমাদের জীবনকে অনেক সহজ করেছে ফ্রিজ , প্রতিদিন বাজার করা, রান্নার ঝামেলা থেকেও অনেকটাই বাঁচিয়ে দিয়েছে এই যন্ত্রটি । আবার মৌসুমি খাবার বেশিদিন টিকিয়ে রাখতেও ফ্রিজ ব্যবহার করা হয়। তবে তা সঠিক নিয়মে রাখতে হবে।

লেবেল দেখে নেওয়া:
খাবার রেফ্রিজারেইটরে সংরক্ষণ করার সময় অবশ্যই এর লেবেল দেখে নিতে হবে। রেফ্রিজারেইটরে কাঁচা ও প্রক্রিয়াজাত খাবার রাখা নিরাপদ। আবার কাঁচা মাংস ও পচনশীল খাবার পুনরায় শীতলকরণ করা নিরাপদ নয়। তবে অবশ্যই রান্না করার পরে খাবার ঠাণ্ডা করে তা রেফ্রিজারেইটরে রাখা যাবে।

প্রস্তুতিকরণ:
যেসব সবজি পরে রান্না করা হবে তা ভালো মতো কেটে রান্নার জন্য প্রস্তুত করে রেফ্রিজারেইটরে রাখতে পারেন। এতে কাজ অনেকটাই সহজ হয়ে যায়। যেমন- ফল, সবজি, রান্না করা মাংস, সস ও মসলা। রান্নার উপকরণ কাটা অবস্থায় থাকলে তা প্রয়োজনের সময় সহজেই ব্যবহার করা যায়।

রেফ্রিজারেটরে রাখা হয়েছে এমন উপকরণগুলো একটা তালিকা করে রাখুন। তাহলে ভুলে যাওয়ার সম্ভাবনা কম থাকবে। যাতে কোনো খাবার যেন নষ্ট না হয়; সেজন্য মাঝে মধ্যে সব একবার দেখে নিন।

জায়গা বাঁচান:
ফ্রোজেন খাবার রেফ্রিজারেইটরের অনেক জায়গা নষ্ট করতে পারে। তাই তা এলোমেলোভাবে না রেখে সাজিয়ে রাখুন। এতে ঠিক মতো বাতাস চলাচল করতে পারবে এবং ভেতরের পরিবেশটাও সুন্দর থাকবে। জায়গা বাঁচাতে খাবারগুলো ‘ফ্রিজার ব্যাগে’ সংরক্ষণ করতে পারেন।

সঠিক বাক্স ব্যবহার:

তরল খাবার ঠাণ্ডা হলে আকারে বেড়ে যায়। তাই পাত্র ভরাট করে রাখা হলে তা পরে আকার নষ্ট করে ফেলতে পারে। কাচের বোতল বা পাত্র এই চাপের কারণে ভেঙে বা ফেটেও যেতে পারে। তাই এসব পাত্র ব্যবহার না করাই ভালো। এক্ষেত্রে প্লাস্টিক বা অ্যালুমিনিয়াম বেশ কাজের।

বিস্কুট, পেস্ট্রি বা ময়দার তৈরি খাবার রেফ্রিজারেইটরে রাখার সময় তা প্লাস্টিকের মোড়কে পেঁচিয়ে রাখুন। এতে খাবারগুলোর গুণগত মান ঠিক থাকবে।

আপনার মতামত জানানঃ