ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  ধর্ম   »   পরিবেশ সংরক্ষণে ইসলাম

পরিবেশ সংরক্ষণে ইসলাম

অক্টোবর ১৬, ২০২০ - ৫:১১ অপরাহ্ণ

বৃক্ষ আমাদের জন্য অমূল্য সম্পদ। বৃক্ষ ছাড়া প্রাকৃতিক পরিবেশ কল্পনা করা অসম্ভব। তাই ইসলাম প্রাকৃতিক পরিবেশ সংরক্ষণে গুরুত্বারোপ করেছে। পাশাপাশি বৃক্ষরোপণে নির্দেশনা দিয়েছে।

প্রকৃতির প্রাণকেন্দ্র হলো পৃথিবী; পৃথিবীর মূল সম্পদ হলো ভূমি, পানি ও পরিবেশগত বৈচিত্র্য। আর পরিবেশ-বৈচিত্র্যের অন্যতম কারিগর উদ্ভিদ। পৃথিবীর মোট উদ্ভিদ প্রজাতির ভেতরকার ২৫ ভাগই বৃক্ষ।

ইসলামে পরিবেশ-প্রকৃতি সংরক্ষণ

প্রতিটি প্রাণিকুলেরই ভারসাম্যপূর্ণ প্রাকৃতিক পরিবেশ দরকার। সুস্থ ও সুন্দরভাবে জীবনধারণের জন্য এর বিকল্প নেই। আমাদের চারপাশে যা কিছু আছে যেমন—গাছপালা, মাটি, পানি, বায়ু, জীবজন্তু, পশুপাখি, রাস্তাঘাট, নদীনালা, পাহাড়-পর্বত, যানবাহন, বাড়ি-ঘর ও কল-কারখানা ইত্যাদি নিয়েই পরিবেশ। কোন পরিবেশে বাস করলে মানুষের সুবিধা হবে বা মানুষ বেঁচে থাকতে পারবে, ইসলাম তা সুনিশ্চিত করেছে। তাই ইসলাম প্রাকৃতিক পরিবেশের ওপর সবিশেষ গুরুত্বারোপ করেছে।

বৃক্ষ রোপণে মহানবী (সা.) এর উৎসাহ

গাছ-পালা, লতা-পাতা মানুষ ও জীবজন্তুর জন্য খাদ্য সরবরাহ করে, মানুষ ও জীবের জন্য অক্সিজেন সরবরাহ করে এবং পরিবেশকে দূষণমুক্ত করে। গাছপালা ঝড়-ঝঞ্ছা প্রতিরোধ করে এবং মাটির ক্ষয়রোধ করে। এ প্রসঙ্গে আনাস (রা.) থেকে বর্ণিত এক হাদিসে প্রিয়নবী (সা.) বলেছেন, ‘কোনো মুসলমান যদি একটি বৃক্ষের চারা রোপণ করে অথবা ক্ষেতখামার করে, অতঃপর তা মানুষ, পাখি কোনো জন্তু ভক্ষণ করে, তা তার জন্য সদকার সওয়াব হবে। ’ (মুসলিম, হাদিস: ৫৫৩২)

সুন্দরভাবে বাঁচার জন্য চাই সুস্থ ও মনোরম প্রাকৃতিক পরিবেশ। অনুকূল ও সুন্দর পরিবেশ ছাড়া কোনো জীবের অস্তিত্ব দীর্ঘায়িত হতে পারে না। বনভূমি ও পশুপাখি আল্লাহ তায়ালার অকৃত্রিম দান ও প্রকৃতির অনিন্দ্য শোভাবর্ধক। তাই রাসুল (সা.) প্রকৃতি-পরিবেশ সংরক্ষণ ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য বিশেষভাবে নির্দেশনা দিয়েছেন।

আপনার মতামত জানানঃ