ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  ক্রাইম   »   নীলফামারীতে-পল্লী বিদ্যুতের কর্মকর্তা লাঞ্চিতের মামলায় আরো ৩ জন গ্রেফতার!!

নীলফামারীতে-পল্লী বিদ্যুতের কর্মকর্তা লাঞ্চিতের মামলায় আরো ৩ জন গ্রেফতার!!

September 26, 2016 - 5:37 AM

মহিনুল ইসলাম সুজন,জেলা প্রতিনিধি নীলফামারীঃঃ– নীলফামারীতে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির বকেয়া বিদ্যুৎ বিলের টাকা আদায়ের কাজে বাধা সৃষ্টি, কর্মকর্তাকে লাঞ্চিত ও চাঁদা দাবির অভিযোগে দায়ের হওয়া মামলায় আরও তিনজনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।
আজ রবিবার সকালে নীলফামারী জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মো. আকরাম হোসেনের আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে আদালত তাদের জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এরা  হলেন, মামলার প্রধান আসামী নুরন্নবী সরকার (২৫), তার বড়ভাই লিটন মিয়া (২৭), চাচাতো ভাই দুখু মিয়া (২৪)। এছারা ওই মামলায় নুরুন্নবীর মা নুর নাহার বেগম (৪৫) ও চাচী বিলকিস বেগম (৩৮) এর জামিন মঞ্জুর করেন একই আদালত।
এর আগে ওই মামলায় নুর আমিন সরকার (২২) নামের এক আসামীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।
গত বুধবার রাতে সদর উপজেলার চড়াইখোলা ইউনিয়নের পশ্চিম কুচিয়ার মোড় গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
মামলার সুত্রমতে গত মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নীলফামারী পল্লীবিদ্যুৎ সমিতির সহকারী মহা ব্যবস্থাপক (প্রশাসন) মো, আবু হাসানের নেতৃত্বে বকেয়া বিদ্যুৎবিল আদায়ের জন্য পাঁচ সদস্যের একটি দল সদর উপজেলার চড়াইখোলা ইউনিয়নের পশ্চিম কুচিয়ার মোড় গ্রামে যান। এসময় ওই গ্রামের নূরন্নবী সরকার (২৫) এবং দুখু মিয়ার (২৪) নেতৃত্বে ছয় থেকে সাত জনের একদল যুবক এসে কাজে বাধা সৃষ্টি ও চাঁদা দাবি করেন। কর্তব্যরতরা চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে হামলা চালিয়ে তাদেরকে শারিরীকভাবে লাঞ্চিত করেন। এঘটনায় সহকারী মহা ব্যবস্থাপক মো. আবু হাসান আহত হন। পুলিশের সহযোগিতায় তাঁকে উদ্ধার করে নীলফামারী সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ঘটনার পর ওই রাতে নীলফামারী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির প্রশাসনিক কর্মকর্তা তরফদার এনামুল কবীর বাদি হয়ে ছয় জনকে আসামী করে নীলফামারী সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
আদালতের উপ পরিদর্শক (সিএসআই) নুর আলম বলেন, রোববার সকালে মামলার অপর পাঁচ আসামী আদালতে হাজির হয়ে জেলহাজতে থাকা নুর আলমসহ ছয়জনের জামিনের আবেদন করলে আদালত নুর নাহার বেগম ও বিলকিস বেগমের জামিনের আবেদন মঞ্জুর করলেও অপর চারজনের জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

নীলফামারী সদর থানার ওসি বাবুল আকতার বলেন,‘পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তাকে লাঞ্চিত, কাজে বাধা সৃষ্টি ও চাঁদা দাবির অভিযোগে ছয়জনকে আসামী করে নীলফামারী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির প্রশাসনিক কর্মকর্তা  এনামুল কবীর গত মঙ্গলবার নীলফামারী সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

আপনার মতামত জানানঃ