ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  ধর্ম   »   নামাজে কাতার সোজা রাখার গুরুত্ব

নামাজে কাতার সোজা রাখার গুরুত্ব

অক্টোবর ২০, ২০২০ - ৯:২৫ অপরাহ্ণ

ধনী, গরিব, অভিজাত-অনভিজাত সবাই এক কাতারে দাঁড়ায় মহান স্রষ্টার কাছে নিজের আনুগত্য প্রকাশের জন্য। বারা ইবনে আজের (রা.) কর্তৃক বর্ণিত, রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম নামাজের কাতারে প্রবেশ করে একপ্রান্ত থেকে অপরপ্রান্ত পর্যন্ত আমাদের সিনা এবং কাঁধ সমান্তরাল করতেন ও বলতেন, তোমরা সামনে ও পেছনে যেও না; অন্যথায় তোমাদের অন্তরে অনৈক্যের সৃষ্টি হবে। তিনি বলতেন, আল্লাহতায়ালা প্রথম কাতারের লোকদের জন্য রহমত প্রেরণ করেন এবং ফেরেশতারা রহমতের দোয়া করেন (আবু দাউদ)

কাঁধের সঙ্গে কাঁধ মিলিয়ে কাতার সোজা করে নামাজ পড়রার ক্ষেত্রে একে অন্যের সঙ্গে মিলেমিশে দাঁড়াবে, যেন পরস্পর একই ব্যক্তি ও একই দেহে পরিণত হয়। এবং একজনের চলাচল যেন অন্য জনের ওপর প্রভাব ফেলে আর পরস্পরের মধ্যে অহংকার ও বিদ্বেষ না থাকে। সুবহানাল্লাহ!

দৈনিক পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়া ফরজ। এ নামাজ পড়তে হয় যৌথভাবে—জামাতের সঙ্গে। জামাতবদ্ধভাবে এবং কাতার সোজা করে নামাজ পড়ার নির্দেশ দেওয়ার কারণ হলো, যাতে মুসলিম সম্প্রদায়ের মাঝে একতা তৈরি হয়। একতা বাস্তব জীবনকে প্রভাবিত করতে পারে। তাই কাতার সোজা করে সম্মিলিতভাবে নামাজ পড়ার নির্দেশ বাস্তবায়ন করার জন্য বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

আনাস (রা.) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, ‘নামাজের ইকামত বলা হলো, রসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আমাদের প্রতি মনোনিবেশ করে বললেন- তোমরা কাতার সোজা রাখ, মিলেমিশে দাঁড়াও, কারণ আমি তোমাদের পেছন থেকেও দেখি (বুখারি)

আপনার মতামত জানানঃ