ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  জাতীয়রাজনীতি   »   ‘দেশে কোটিপতির বাম্পার ফলন হয়েছে’

অজানা লুটের ফল

‘দেশে কোটিপতির বাম্পার ফলন হয়েছে’

January 26, 2021 - 8:55 PM

সম্প্রতি জাতীয় সংসদে বিএনপির সাংসদ রুমিন ফারহানা সরকারের কঠোর সমালোচনা করেছেন। সোমবার (২৫ জানুয়ারি) রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আনা ধন্যবাদ প্রস্তাবের আলোচনায় তিনি বাংলাদেশকে লুটের এক ‘টেক্সটবুক এক্সাম্পল’ বলেন।

এসময় তিনি অনেক অজানা লুটের ফল হিসেবে কোটিপতির বাম্পার ফলন ঘটেছে বলে মন্তব্য করেন।

এদিন তার বক্তব্যে তিনি সরকারি খাতে দেখানো খরচের কথা উল্লেখ করেন। তিনি একটি বালিশ ৬ হাজার টাকা, একটি বঁটি ১০ হাজার টাকা, কাঁটাচামচ ১ হাজার টাকা, টেলিফোন ১৫ লাখ টাকা, লিফট ২ কোটি টাকা, রক্তচাপ মাপার মেশিন ১০ লাখ ২৫ হাজার টাকা, চেয়ার ৬ লাখ টাকা হওয়াকে ‘স্বাভাবিক বিষয়’ হিসেবে অভিহিত করেন।

তিনি বলেন, এক যুগের জানা-অজানা লুটের ফল হয়েছে বাংলাদেশে কোটিপতির বাম্পার ফলন। ২০০৯ সালে কোটিপতি ছিলেন ২১ হাজার ৪৯২ জন। ২০২০ সালে সেটি দাঁড়িয়েছে ৮৭ হাজার ৪৮৮ জনে। ব্যাংকের এই হিসাবের বাইরে আছে আরও বহু কোটিপতি। বিশ্বে ২৫০ কোটি টাকার বেশি সম্পদের মালিক হিসেবে অতি ধনী বৃদ্ধির হারে বাংলাদেশ প্রথম আর ধনী বৃদ্ধির হারে বাংলাদেশ তৃতীয়, কিন্তু বিশ্বে দরিদ্র মানুষের সংখ্যায় বাংলাদেশ পঞ্চম। সরকারের এযাবতকালের সব ব্যর্থতা ছাড়িয়ে গেছে করোনাকালীন ব্যর্থতা। শুরু থেকে করোনা পরীক্ষা, মাস্ক, পিপিই, হাসপাতালে শয্যা, অক্সিজেন সরবরাহ, আইসিইউ, প্রণোদনাসহ সবক্ষেত্রে দুর্নীতি আর অব্যবস্থাপনা এই কঠিন সময়কে কঠিনতর করেছে।

তিনি আরও বলেন, পৃথিবীতে একমাত্র দেশ বাংলাদেশ, যেখানে নকল করোনা সার্টিফিকেট বিক্রি হয়েছে। এখন যুক্ত হয়েছে টিকা নিয়ে ব্যবসা। শুধু সেরাম ইনস্টিটিউটের সঙ্গে সরাসরি চুক্তি না করে বেক্সিমকোর সঙ্গে চুক্তি করার কারণে বাংলাদেশকে ভারতের তুলনায় ৪৭ শতাংশ বেশি দামে টিকা কিনতে হচ্ছে, যাতে ৩২৫ কোটি টাকা যাবে কোম্পানিটির পকেটে।

Tags:

আপনার মতামত জানানঃ