ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  খেলাধুলা   »   দলে থাকলে সফরে আসতেন না তিনি!

দলে থাকলে সফরে আসতেন না তিনি!

August 27, 2016 - 11:08 AM

ক্রীড়া প্রতিবেদক : ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের ব্যাটসম্যান কেভিন পিটারসেন জানিয়েছেন, দলে থাকলে বর্তমান পরিস্থিতি অনুযায়ী বাংলাদেশ সফরে আসতেন না তিনি। এমনকি সতীর্থেরও বাংলাদেশে না আসার পরামর্শ দিতেন। শুক্রবার ক্রিকইনফোকেএমনটাই বলেছেন ডানহাতি এ ব্যাটসম্যান।

 

বাংলাদেশের নিরাপত্তা পরিকল্পনায় সন্তুষ্ট হওয়ায় দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলস (ইসিবি) ক্রিকেট বোর্ড। বৃহস্পতিবার তারা জানায় নির্ধারিত সময়ে বাংলাদেশ সফরে আসবে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল। তবে কোনো ক্রিকেটার চাইলে সফরে না আসার সিদ্ধান্তও নিতে পারবে। এখন পর্যন্ত ইংলিশ কোনো ক্রিকেটার সফরে না আসার সিদ্ধান্ত ইসিবিকে জানায়নি।

 

কিন্তু এ মুহুর্তে ইংল্যান্ডের সিনিয়র ক্রিকেটারদের বিশেষ করে যাদের পরিবার আছে তাদেরকে বাংলাদেশ সফরে না যেতে পরামর্শ দিয়েছেন পিটারসেন।

 

তার ভাষ্য, ‘বাংলাদেশে গিয়ে ছয় সপ্তাহ থাকতে রাজি নই ! তরুণ ক্রিকেটারদের বিশেষ কিছু চিন্তা করার প্রয়োজন নেই। কিন্তু অভিজ্ঞ টেস্ট দলের অনেক কিছুই চিন্তা করতে হবে। অনেকেরই পরিবার আছে এবং অন্যান্য দায়িত্ব আছে। তাদের চিন্তা করতে হবে, ‘আমি কিভাবে বাংলাদেশ সফর বাতিল করতে পারি?’ বাংলাদেশে সফরে না যাওয়ার সুযোগ সবারই আছে। আমি নিশ্চিত তারা ভেবেচিন্তে তাদের সিদ্ধান্ত নিবে। আমি জানি অনেক সাংবাদিকও বাংলাদেশে যেতে চাইবে না। এজন্যই বলছি সিদ্ধান্তটা কঠিন হবে।’

 

সন্তানসম্ভবা স্ত্রী এলিসের পাশে থাকতে বাংলাদেশে নাও আসতে পারেন অ্যালিস্টার কুক। কুকের জন্যে এ সিদ্ধান্ত অনেক কঠিন হবে বলে মনে করছেন পিটারসেন। কারণ অধিনায়ক কোনো কারণে এ সফর না করলে সিনিয়র অনেকেই সফরে আসতে রাজি হবেন না বলে মনে করছেন পিটারসেন।

 

তিনি বলেন,‘কুকের জন্যে এ সিদ্ধান্তটি অনেক কঠিন হবে। সে যেতে রাজি না হলে অনেকেই তার পথে হাঁটবে। আবার একজন সফরে রাজি হলে আবার অন্যরা তাকে অনুসরণ করবে।’

 

২০০৮ সালে মুম্বাই হামলার সময় ইংল্যান্ড দলে ছিলেন পিটারসেন। সফর স্থগিত করে ফিরে আসার পর পরবর্তীতে ভারতে ইংল্যান্ড দলকে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন পিটারসেন। অনেকটা জোর করেই ভারতে দল নিয়ে গিয়েছিলেন পিটারসেন। কিন্তু দুই সন্তানের জনক পিটারসেন বলছেন এ মুহুর্তে ওই সিদ্ধান্ত নিতেন না। সেবার ভারতে যাওয়ার কারণে স্টিভ হার্মিসন ও অ্যান্ড্রু ফ্লিনটফের সঙ্গে সম্পর্ক খারাপ হয় পিটারসেনের।

 

ভারতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত ভুল ছিল জানিয়ে পিটারসেন বলেন, ‘সেই সময়ে ইংল্যান্ড দলকে নেতৃত্ব দেওয়া ঠিক হয়নি। আমি অনেক কিছুই বুঝতে পারিনি। আমার সিদ্ধান্তের কারণে সিনিয়র ক্রিকেটারদের সঙ্গে আমার সম্পর্ক খারাপ হয়। আমি বাবা হওয়ার পর অনুধাবন করতে পারি আমি কি ভুল করেছিলাম!’

আপনার মতামত জানানঃ