ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  Uncategorized   »   তিল ঠাই নাইরে…

তিল ঠাই নাইরে…

September 19, 2016 - 8:29 AM

এম এ হান্নান,বরিশাল :
নারীর টানের পর এবার কর্মের টানে মানুষের ঢল নেমেছে বরিশাল আধুনিক নৌ বন্দর এবং কেন্দ্রীয় বাসস্ট্যান্ড নথুল্লাবাদে। বসা তো দূরের কথা ল ও বাসগুলোতে একটু দ্বাড়ানোর স্থান পেতে রিতিমত যুদ্ধের অবস্থা। তাতে হয়তো কেউ কেউর ভাগ্যে একটু জায়গাও মিলে যায়, কিন্তু ততক্ষনে ধস্তা-ধস্তিতে নেমে-ঘেয়ে একাকার। চলতি পথে বিরতী দিলেই ‘জায়গা নাই, উঠেন না’ বললেও চলে সেই যুদ্ধ। সবারই যে তাড়া। কর্মস্থলে ফেরার যুদ্ধে গতকাল শনিবার ল -বাস তীব্র যাত্রী চাপ লক্ষ্য করা গেছে। যাত্রী চাপ সামলাতে গতকাল বরিশাল নৌ বন্দর থেকে ১৫ ল , দুই স্টীমার ঢাকার উদ্যোশে ছেড়ে গেছে। তবে তিল ধারণের ঠাই ছিল না ল ও স্টীমারে। অনেক যাত্রী অভিযোগ করেছেন, এ সুযোগে ডেকে জায়গা বিক্রি করছে অসাধুরা। অপর দিকে কেন্দ্রীয় নথুল্লাবাদ বাস টার্মিনাল থেকে প্রতি ১৫ থেকে ৩০ মিনিট পর পর বাস ছেড়ে গেছে। বরিশাল নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের ট্রাফিক ইন্সপেক্টর রিয়াদ হোসেন জানান, বরিশাল থেকে কীর্তনখোলা, দীপরাজ, কালাম খান, টিপু, ফারহান, সুন্দরবন, পারাবত এবং সুরভীসহ মোট ১৫টি ল রাত ৮ টার মধ্যে ঢাকার উদ্যোশে ছেড়ে গেছে। এতে করে লক্ষাধিক যাত্রী ঢাকা যেতে পারবেন বলে জানান তিনি। তিনি বলেন, অতিরিক্ত যাত্রী কোনো ল ই তুলতে দেয়া হবে না। নির্ধারিত লোড সাইন অতিক্রম করার আগেই ল ছেড়ে দেয়ার জন্য মাস্টারদের বলা হয়েছে। যারা মানবেন না তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে উলে¬খ করেন তিনি। বরিশাল থেকে ঢাকাগামী লে র যাত্রী আবুল কালাম অভিযোগ করে বলেন, তিনি বিকাল ৪ টায় তার খালাকে নিয়ে বরিশাল ল ঘাটে এসে পারাবত ১২ এর ডেকের একটি স্থানে খালি পেয়ে নিজেদের জন্য জায়গা নেন। সেখানে চাঁদর বিছানোর পর একটি লোক এসে ৫০ টাকা দাবি করে নয়তো চাঁদর বিছানো যাবে না বলে জানায়। পরে তাকে ৫০ টাকা দিলে সে চলে যায়। এ বিষয়ে পারাবত লে র ম্যানেজার সেলিম মিয়াকে জানানো হলে তিনি বলেন, এ ধরনের কাজ লে র কোনো স্টাফ করতে পারে না। যদি করে তবে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। বহিরাগত দালালরা এটা করে থাকতে পারে। তবে তারা সু-চতুর হওয়ায় তাদের ধরাটাও কঠিন বলে জানান তিনি। এদিকে লে টিকেট বা জায়গা না পেয়েও ভোগান্তিতে পড়ছেন অনেকে। যাত্রী ও বরিশাল নগরীর বাসিন্দা মিজানুর রহমান জানান, ল গুলোর ডেকের সিটতো পূর্ণ হয়ে গেছে অনেক আগেই। এমনকি কেবিনের আশপাশও ভরে গেছে যাত্রীতে। তাই কি করবেন বুঝতে পারছেন না। কিন্তু তাকে ঢাকায় যেতেই হবে। বাংলাদেশ অভ্যন্তরীন নৌ চলাচল (যাত্রী পরিবহন) সংস্থার সহ সভাপতি ও সুন্দরবন লে র স্বত্বাধিকারী সাইদুর রহমান রিন্টু জানান, শনিবার যাত্রী বেড়ে গেছে, তবে ল মালিকরা বাড়তি যাত্রীর জন্য আগে থেকেই বাড়তি লে র ব্যবস্থা রেখেছেন। এ জন্য তেমন কোন সমস্যা হবে না বলে জানান তিনি। লে র ডেক, কেবিনের সামনের বারান্দাসহ কোনো স্থানেই খালি জায়গা নেই। এদিকে সকালে নথুল্লাবাদ বাস টার্মিনালে দেখা গেছে, প্রচুর যাত্রীদের ভিড়। কেউ কেউ মাইক্রোবাসে ছুটছেন কর্মস্থলে। বরিশাল জেলা বাস মালিক সমিতির সভাপতি আফতাব হোসেন জানান, যাত্রীদের ভোগান্তি লাঘবে ঢাকা-বরিশাল রুটের প্রতিটি বাস কোম্পানি তাদের নিয়মিত সার্ভিসের পাশাপাশি স্পেশাল সার্ভিসও দিচ্ছেন। প্রায় ১৫ থেকে ৩০ মিনিট অন্তর একটি করে বাস এ টার্মিনাল ত্যাগ করেছে।

আপনার মতামত জানানঃ