ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  আন্তর্জাতিক   »   তাবিজের মাধ্যমে চিকিৎসা করায় খুন হন ইমাম

তাবিজের মাধ্যমে চিকিৎসা করায় খুন হন ইমাম

August 24, 2016 - 8:58 AM

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : যুক্তরাজ্যে গত ফেব্রুয়ারিতে নিহত বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ইমাম তাবিজের মাধ্যমে চিকিৎসা করতেন বলে আইএসের দুই সমর্থক তাকে হত্যা করে।

 

চলতি সপ্তাহে যুক্তরাজ্যের আদালতে ওই ইমাম হত্যা মামলার বিচারকার্য চলাকালে প্রসিকিউটর পল গ্রিনি এ কথা বলেন। তিনি বলেন, চিকিৎসার নামে ‘কালো জাদু’র চর্চা করতেন বলে আইএস সমর্থকরা ইমামের ওপর ক্ষিপ্ত ছিল।

 

গত ১৮ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় ম্যানচেস্টারের রচডেলের শিশু পার্কে জালাল উদ্দিন নামের ওই ইমামকে হত্যা করে আইএসের দুই সমর্থক মোহাম্মদ আবদুল কাদির ও মোহাম্মদ হোসেইন সাঈদী।

 

স্থানীয় মসজিদে ইমামতি শেষে এক বন্ধুর বাসায় রাতের খাবার খেয়ে পায়ে হেঁটে বাড়িতে ফেরার পথে জালাল উদ্দিনকে হত্যা করা হয়।

 

প্রসিকিউটর পল গ্রিনি জানান, আসামি সাঈদী স্বীকার করেছেন যে, ইমাম জালাল উদ্দিনকে হত্যা করে কাদির এবং হত্যার আগে-পরে সে কাদিরকে সহায়তা করে।

 

তিনি আরো বলেন, ‘জালাল উদ্দিন রাকিয়া (তাবিজের মাধ্যমে চিকিৎসা) চর্চা করতেন। আইএস এ ধরনের চিকিৎসাকে কালো জাদু চর্চা বলে মনে করে এবং এই ধারণায় বিশ্বাস করে যে, যারা এই ধরনের চিকিৎসা চর্চা করে তাদের কঠিন শাস্তি, এমনকি মৃত্যু প্রাপ্য।’

 

সাঈদী ও কাদির, দুজনের বয়সই ২০ এর সামান্য বেশি। তারা হত্যার কয়েক মাস আগে থেকে জালাল উদ্দিনের প্রতি লক্ষ্য রাখছিল। ১৮ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় সুযোগ বুঝে হাতড়ি দিয়ে পিটিয়ে তাকে হত্যা করে বলে আদালতকে জানান পল গ্রিনি।

 

তিনি আরো বলেন, ‘ডাকাতি করতে গিয়ে জালাল উদ্দিনকে আঘাত করা হয়নি। বরং এটি ছিল পরিকল্পিত হামলা- না হলে শিশু পার্কে হত্যাকারীরা হাতুড়ি নিয়ে যাবে কেন? ঘৃণা থেকে জালাল উদ্দিনকে গুরুতর আহত কিংবা হত্যা করতে তার ওপর এ হামলা করা হয়।’

 

উল্লেখ্য, আগামী মাসে এ মামলার বিচারকার্য শেষ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

 

তথ্যসূত্র : এনডিটিভি

 

আপনার মতামত জানানঃ