ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  ক্রাইম   »   ডিমলায় গৃহবধুকে অভিনব কায়দায় হত্যা করে আত্নহত্যার প্রচার।।থানায় মামলা দায়ের

ডিমলায় গৃহবধুকে অভিনব কায়দায় হত্যা করে আত্নহত্যার প্রচার।।থানায় মামলা দায়ের

September 10, 2016 - 2:49 PM

মহিনুল ইসলাম সুজন,ক্রাইমরিপোর্টার নীলফামারীঃঃ– এক গৃহবধুকে অভিনব কায়দায় হত্যা করে মুখ ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে বিষ ছিটিয়ে দিয়ে আত্নহত্যার প্রচার চালানোর অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার ঘটনাটি ঘটেছে নীলফামারীর ডিমলায় উপজেলার ঝুনাগাছ চাপানি ইউনিয়নের দক্ষিন সোনাখুলি গ্রামে। রাতে পুলিশ লাশ উদ্বার করে থানায় নিয়ে আসে।আজ শনিবার দুপুরে নীলফামারী আধুনিক হাসপাতালের লাশের ময়না তদন্ত সম্পন্ন করা হয়েছে।
পুলিশ সুত্রে জানা যায়, ঝুনাগাছ চাপানি বিন্যাকুড়ি গ্রামের খতিবর রহমানের কন্যা সুমি আক্তার (২০) সাথে একই ইউনিয়নের দক্ষিন সোনাখুলি গ্রামের সেরাজুল ইসলামের পুত্র আলমগীর হোসেনের সাথে গত ২ বছর আগে বিয়ে হয়। তার সংসারে মনি আক্তার নামে ৩ মাসের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে সুমির শ্বশুড় বাড়ীতে সংসার আলাদা নিয়ে দ্বন্দ হয় মর্মে (সুমি) তার পিতা খতিবর রহমানকে বলেন। এ সময় সুমিকে আলাদা সংসার করার জন্য শ্বশুড় সেরাজুল ইসলাম চাপ সৃষ্টি করেন। কিন্তু কৃষক আলমগীর সংসার আলাদা করতে রাজি হয়নি।
এ নিয়ে স্বামী স্ত্রীর দ্বন্দ সৃষ্টি হয়। রাতে মেয়ের শ্বশুড় বাড়ী থেকে খতিবর রহমান নিজের বাড়ীতে চলে যায়। শুক্রবার বিকালে তিনি মোবাইল ফোনে জানতে পারেন সুমি বিষপানে আত্বহত্যা করেছে। সুমি বিষপানে আত্বহত্যা করলে তার গলায় কালো দাগ থাকায় পিতার সন্দেহ হয়। সুমির পিতা বাদী হয়ে ডিমলা থানায় অপমৃত্যু মামলা নং-১১ দায়ের করেন। ডিমলা থানার এসআই আতিকুর রহমান বলেন, লাশটির গলায় দাগ দেখে আত্বহত্যার বিষয়টি সাজানো বলে মনে হচ্ছে। মেয়েটির শরীরের বিভিন্ন স্থানে বিষ ছিটিয়ে দেয়া হয়েছে মর্মে প্রাথমিকভাবে মনে হওয়ায় লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরন করা হয়েছে। লাশ ময়না তদন্তে হত্যার আলামত পাওয়া গেলে ইউডি মামলাটি হত্যা মামলায় রুপান্তিত করা হবে।

আপনার মতামত জানানঃ