ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  জাতীয়   »   ডিএপি দুর্ঘটনায় ২ কর্মকর্তা দায়ী : তদন্ত প্রতিবেদন

ডিএপি দুর্ঘটনায় ২ কর্মকর্তা দায়ী : তদন্ত প্রতিবেদন

August 31, 2016 - 1:33 PM

চট্টগ্রাম : চট্টগ্রামে ডিএপি সারকারখানায় অ্যামোনিয়া গ্যাস ট্যাঙ্ক বিস্ফোরণের ঘটনায় দুই কর্মকর্তাকে দায়ী করা হয়েছে জেলা প্রশাসনের তদন্ত প্রতিবেদনে।

অভিযুক্ত কর্মকর্তারা হলেন- উপপ্রধান প্রকৌশলী দিলিপ কুমার ও জিএম (টেকনিক্যাল) রাকিবুল ইসলাম।

বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এই তদন্ত প্রতিবেদন তুলে ধরেন জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন।

তদন্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, সব ধরনের নিরাপত্তা যন্ত্রপাতি নষ্ট ও বন্ধ থাকায় চট্টগ্রামের আনোয়ারায় ডিএপি সারকারখানায় অ্যামানিয়া গ্যাস ট্যাঙ্ক বিস্ফোরিত হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, অ্যামোনিয়া গ্যাস ট্যাঙ্কের নিরাপত্তার জন্য থাকা রেফ্রিজারেশন কম্প্রেসার সিস্টেম, প্রেসার গজসহ পাঁচ ধরনের সুরক্ষা যন্ত্র অকেজো থাকায় গ্যাস ট্যাঙ্ক বিস্ফোরণ ঘটেছে। এ ঘটনায় ডিএপি’র দুজন কর্মকর্তা দায়ী বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন প্রতিবেদন তুলে ধরে বলেন, ডিএপি সার কারখানার বিপজ্জনক অ্যামোনিয়া গ্যাস ট্যাঙ্কের তাপ ও চাপ মাপার জন্য স্বয়ংক্রিয় ডিসিএস সিস্টেম রয়েছে। এই সিস্টেমে দুটি প্রেসার ট্রান্সমিটারের মাধ্যমে ট্যাঙ্কের গ্যাসের চাপ দুটি কম্পিউটারে প্রদর্শিত হয়। যার একটি দীর্ঘদিন ধরেই নষ্ট এবং অপরটি দুর্ঘটনার আগের দিন নষ্ট হয়ে যায়। ট্যাঙ্কে রক্ষিত অতিরিক্ত গ্যাসের চাপ বের করে দেওয়ার জন্য দুটি প্রেসার ভেন্টিলেটর রয়েছে। দুর্ঘটনার সময় এই দুটিও বন্ধ ছিল। এছাড়া স্বয়ংক্রিয়ভাবে গ্যাসের চাপ নিয়ন্ত্রণ করার জন্য ট্যাঙ্কে একটি ফ্লেয়ার সিস্টেম রয়েছে। দুর্ঘটনার সময় এটিও অকেজো ছিল।

তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, দুর্ঘটনার সময় ৫০০ মেট্রিক টন ধারণক্ষমতা সম্পন্ন ট্যাঙ্কটিতে ৩৪০ মেট্রিক টন তরল অ্যামোনিয়া ছিল। একদিকে ট্যাঙ্কের সব নিরাপত্তা যন্ত্রপাতি নষ্ট ও বন্ধ ছিল, অপরদিকে মাত্রাতিরিক্ত গাসের চাপ, ফলে ট্যাঙ্কটির নিচের অংশে বেজপ্লেট বরাবর বিস্ফোরণ ঘটে।

নির্গত গ্যাসের চাপে ট্যাঙ্কটি উড়ে গিয়ে প্রায় ২০ ফুট দ্যরে পড়ে এবং সম্পূর্ণভাবে বিধ্বস্ত হয়। এ দুর্ঘটনার জন্য ডিএপি’র দুজন কর্মকর্তাকে দায়ী করা হয়। এই কর্মকর্তারা হলেন- উপপ্রধান প্রকৌশলী দিলিপ কুমার ও জিএম (টেকনিক্যাল) রাকিবুল ইসলাম।

উল্লেখ, গত ২২ আগস্ট রাতে আনোয়ারার ডিএপি সারকারখানার অ্যামোনিয়া গ্যাস ট্যাঙ্ক বিস্ফোরণ ঘটে। এতে আনোয়ারায় বিভিন্ন খামারে ৩৬ মেট্রিক টন মাছ মরে যায়।

আপনার মতামত জানানঃ