ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  সারা বাংলা   »   ঠাঁই মিলেছে আশ্রয়কেন্দ্রে, মিলেছে না খাবার-পানি

ঠাঁই মিলেছে আশ্রয়কেন্দ্রে, মিলেছে না খাবার-পানি

জুলাই ২১, ২০২০ - ৪:০৫ অপরাহ্ণ
জামালপুর আশ্রয়কেন্দ্রে

নদ-নদীর পানি বাড়ায় সারাদেশে আবারও বন্যা পরিস্থিতি অবনতির দিকে। জামালপুরে গ্রামের পর গ্রাম পানিতে তলিয়ে আছে। আশ্রয়কেন্দ্রে ঠাঁই মিললেও খাবার ও বিশুদ্ধ পানির সংকট চরমে। রাস্তাঘাট তলিয়ে বন্ধ আঞ্চলিক যোগাযোগ ব্যবস্থাও। স্থানীয় প্রশাসনের দাবি, বন্যার্তদের সহায়তায় ত্রাণ তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।

প্রতিবন্দী ৯০ বছরের আবেদন বেগম। জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার চুকাইবাড়ি এলাকায় বসবাস। নদী ভাঙনে কেড়ে নিয়েছে শেষ সম্বল বসতভিটাও। এরপর রেললাইনের পাশে সরকারের দেয়া একটি ঘরে ২০ বছর ধরে থাকতেন। কিন্তু সেখানেও হানা দিয়েছে বন্যার পানি। বাধ্য হয়ে প্রতিবন্দী দুই মেয়েকে নিয়ে ঠাঁই নিয়েছেন আশ্রয় কেন্দ্রে।

একই অবস্থা বন্যার পানিতে ঘরবাড়ি হারিয়ে আশ্রয়কেন্দ্রে থাকা বেশিরভাগ মানুষের। খেয়ে না খেয়ে কোন মতে চলছে তাদের জীবন। করোনার মধ্যে হঠাৎ বন্যায় কাজ-কর্ম হারিয়ে দিশেহারা হাজার হাজার পরিবার। আজও পাননি তারা তেমন কোনো সহায়তা।

তবে জামালপুর দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী রাজিয়া সুলতানার দাবি, বন্যার্তদের রান্না করা খাবারসহ নিয়মিত ত্রাণ সহায়তা দেয়া হচ্ছে।

বন্যায় জেলার ৭ টি উপজেলার ছয় শতাধিক গ্রাম প্লাবিত। বিচ্ছিন্ন ৪০টি ইউনিয়নের অভ্যন্তরীণ সড়ক যোগাযোগ। পানিবন্দি প্রায় ১০ লাখ মানুষ। এদের মধ্যে ১৫ হাজারের বেশি বানভাসি ঠাঁই নিয়েছেন আশ্রয়কেন্দ্রে।

আপনার মতামত জানানঃ