ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  জাতীয়   »   ছাড়াই ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কমলাপুর রেল স্টেশনের কর্মকর্তারা

ছাড়াই ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কমলাপুর রেল স্টেশনের কর্মকর্তারা

August 29, 2016 - 5:00 AM

নিজস্ব প্রতিবেদক : ঠেলাঠেলি, ভিড় বা কোনো ধরনের ঝক্কিঝামেলা ছাড়াই ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কমলাপুর রেল স্টেশনের কর্মকর্তারা।

সোমবার সকাল ৮টা থেকে টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে বলে জানান কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজার সিতাংশু চক্রবর্তী।

কাঙ্খিত এ সোনার হরিণের জন্য অনেকে গতরাত থেকেই স্টেশনে দাঁড়িয়েছিলেন। সারা রাত জেগে অবশেষে সকালে টিকিট পেয়ে ‘ভি’ চিহ্ন (বিজয়) দেখিয়ে আনন্দ প্রকাশ করছিলেন তারা। যেন অনেক বড় কোনো প্রতিকূলতা জয় করেছেন।

টিকিট নিয়ে ফেরার সময় কথা হয় আরামবাগের সবুজের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘রাতেই টিকিটের জন্য লাইনে দাঁড়িয়েছিলাম। সিরিয়াল অনেক আগেই ছিল। এ কারণে টিকিট পেতে তেমন কোনো অসুবিধা হয়নি। প্রতিবারই আমি পরিবারের সঙ্গে ঈদ করতে গ্রামের বাড়ি দিনাজপুরে যাই।’

বাড্ডার বেসরকারি চাকরিজীবী সুমন মিয়া বলছিলেন, ‘মনে হয়েছিল টিকিট নামের সোনার হরিণ পেতে কষ্ট হবে। কিন্তু তেমন হয়নি।’

সুমন জানান, সোমবার ফজরের নামাজের পর তিনি লাইনে দাঁড়ান। সকাল পৌনে ৯টায় তিনটি টিকিট পেয়েছেন।

তাদের মতো অনেকেই এ সময় অগ্রিম টিকিট নিয়ে ফিরছিলেন। প্রতিটি কাউন্টারের সামনে ছিল দীর্ঘ লাইন। তবে নারীদের জন্য কাউন্টার কম থাকায় তাদের টিকিট পেতে বেগ পেতে হয়। এ সময় কাউন্টার থেকে ধীরগতিতে টিকিট দেওয়ার অভিযোগ করেন অনেকেই। এরই মধ্যে নিরাপত্তা বাহিনীসহ সরকারের বিভিন্ন সংস্থার লোকজনকে সতর্ক অবস্থানে থাকতে দেখা গেছে।

স্টেশন ম্যানেজার সিতাংশু চক্রবর্তী বলেন, ‘অন্যবারের তুলনায় এবার টিকিট বেশি বিক্রি করা হচ্ছে। ২২টি কাউন্টারে প্রতিদিন আন্তঃনগর বা বিভিন্ন লোকাল ট্রেনের প্রায় ২১ হাজার অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হবে। এ ছাড়া ২৫ শতাংশ মোবাইল বা অনলাইনে, ৫ শতাংশ ভিআইপি এবং ৫ শতাংশ রাখা হয়েছে রেলের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য। বাকি ৬৫ শতাংশ টিকিট সাধারণ জনগণের জন্য রাখা হয়েছে।

রেলওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল মজিদ জানান, ‘কোনো ধরনের কালোবাজারি হচ্ছে কিনা তা নজরদারি করতে পোশাক পরিহিত পুলিশের সঙ্গে সাদা পোশাকে গোয়েন্দারা কাজ করছে। কেউ বিশৃঙ্খলা করলে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আপনার মতামত জানানঃ