ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  ক্রাইম   »   চিরিরবন্দরে ধনার্ঢ্য কার্ডধারীর বাড়িতে কাজ মিলছে হতদারিদ্র কোহিনুরের

চিরিরবন্দরে ধনার্ঢ্য কার্ডধারীর বাড়িতে কাজ মিলছে হতদারিদ্র কোহিনুরের

October 18, 2016 - 3:59 PM

মোহাম্মাদ মানিক হোসেন চিরিরবন্দর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:
দিনাজপুরে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিক্রির খাদ্য বান্ধব কর্মসূচী ভেস্তে যেতে বসেছে। হতদরিদ্র কোহিনুরের জনপ্রতিনিধির কাছে ধর্না দিয়ে মেলেনি একটি কার্ড। অথচ ধর্নাঢ্য কার্ডধারীর বাড়িতে দিন হাজিরায় কাজ মিলছে ওই হতদরিদ্রের। ঘটনাটি ঘটেছে জেলার চিরিরবন্দওে ১২ নং আলোকডিহি ইউনিয়নের আলীপাড়ায়।

গত শক্রবার সরজমিনে এলাকায় গেলে আলোকডিহি ইউনিয়নের আলীপাড়ার রোস্তম আলীর স্ত্রী কোহিনুর বেগম বলেন, অন্যের ভিটায় ছোট একটা কুড়ে ঘরে কোন রকমে দু’সন্তান নিয়ে দিনাতিপাত করছি। আমার স্বামী ভ্যান চালায় সৈয়দপুর কামাই হলে জুটবে মুখে ভাত । আমার এক ছেলে এক মেয়ে , ছোট একটা ছালা টিন পাতানো একটি ঘরে থাকি তবু আমার ভাগ্যে ১০ টাকার চাউল জোটেনি। একই এলাকার বাবলু, নুরআলম, পাতিল বিক্রিতা হামিদ, মসলেম, মজিদুল, রশিদুল, আবুল হোসেন, শফিকুল, নুর আলম, মসলেম, আশরাফ, নাজিমদ্দিন, মো: শফি, বিধবা গোলেজা, বেকিপুলের কালিপদ, বানিয়া পাড়ার লক্ষী কান্ত গছাহার গ্রামের ভ্যান চালক ছাবিদুল, হামিদুল, রমজান, বুলবুল, আলীম, হামিদুল, জহির,ইউনুস, মকবুল, কানা ফারুক, আলীম, মান্নান অভিযোগ করে বলেন, তারা অন্যের বাড়িতে দিনমজুরি করলে তাদের ভাগ্যেও হত-দরিদ্রর কার্ড জোটেনি।
অপরদিকে কার্ডধারীদের অনেকেই বিত্তবান, সরকারি চাকুরীজীবি ও স্বচ্ছল পরিবারের লোক। এ ছাড়াও একই পরিবারে লোকদের নাম তালিকাভুক্ত করে হত দরিদ্র সেজেছেন বলেও অভিযোগে পাওয়া গেছে। স্বচ্ছল পরিবরের কার্ডধারীদের মধ্যে ডেকোরেটরের মালিক রফিকুল ইসলাম (৩২২), বর্তমান ইউ’পি সদস্য (মহিলা) রনিতা রাণী দেবনাথ (৬৩২), মুদির দোকানদার কমল কান্তী রায় (৬১৯), জাকির হোসেন (৫০৩), আশা অফিসের ম্যানেজার খোকন (৫১৬) পুলিশের বাবা আজগার আলী (৫২৩) ডিলারের সহযোগী ধনাঢ্য ব্যক্তি ফারুক হোসেনের স্ত্রী- মুনমুন (১৮৪)’ নাম তালিকাভুক্ত হয়েছে।
এ ব্যাপারে আলোকডিহি ইউনিয়নের ডিলার মো: মামনুর রশিদ বলেন, আমার অনেক শক্র আছে। কে আমার নামে অভিযোগ করছে? পরে চাল ডিলার শফি-উল্লার সাথে কথা হলে তিনি বলেন, অভিযোগ থাকতেই পারে আপনাদের কি করার আছে করেন।
এরপর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রয়ক আবু হেনা মোস্তাফা কামালের সাথে কথা হলে তিনি জানান, তদারকির জন্য আমাদের ট্যাগ অফিসার নিযুক্ত করা হয়েছে। বিষয়টি তিনি দেখভাল করবেন। তাছাড়া ডিলারদের চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ পেলে আমাকে অবগত করবেন আমি ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। তবে, চাল বিতরন সরকারের বিশেষ একাটি খাদ্য বান্ধব কর্মসূচী এ বিষয়ে সংবাদ প্রকাশ না করতে অনুরোধ করেন।

আলোকডিহি ইউনিয়নের চাল বিতরণের অনিয়মের অভিযোগ ইতিপূর্বে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফিরোজ মাহামুদকে বিষয়টি জানালে, তিনি জানান, ১০ টাকা চাল বিতরণ কর্মসূচিতে অনিয়মের অভিযোগ পেলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আপনার মতামত জানানঃ