ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  আন্তর্জাতিক   »   গ্রাম্য সালিশে আদিবাসী নারীকে গণধর্ষণ

গ্রাম্য সালিশে আদিবাসী নারীকে গণধর্ষণ

আগস্ট ২৪, ২০২০ - ৬:৩১ অপরাহ্ণ
আদিবাসী নারীকে ‘গণধর্ষণ

ভিন্ন জাতের যুবকের সঙ্গে প্রেম করার অপরাধে গ্রাম্য সালিশের মাধ্যমে এক আদিবাসী নারীকে ‘গণধর্ষণ’ এর শাস্তি দেয়া হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম জেলার মোহাম্মদ বাজারে। এ ঘটনায় স্থানীয় মোড়লসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রের বরাতে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ওই নারী মোহাম্মদ বাজারের চরিচা পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দা। কয়েক বছর আগে দুই সন্তানের জননী (৩০) ওই নারীর স্বামী মারা যান। এলাকারই এক যুবকের সঙ্গে গড়ে ওঠে তার সম্পর্ক। তবে ওই যুবক ভিন্ন জাতের হওয়ায় তা ভালো চোখে দেখেননি গ্রামবাসীদের একাংশ।

ওই নারী পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগে জানিয়েছেন, গত ১৮ আগস্ট সন্ধ্যায় পূজা শেষে স্থানীয় শেওড়াকুড়ি মোড় থেকে তিনি ওই যুবকের সঙ্গে গ্রামে ফিরছিলেন। তখন গ্রামের বেশকিছু লোক তাদের ক্লাবঘরে নিয়ে মারধর করে। এরপর গভীর রাতে ক্লাবের সদস্য পাঁচ যুবক পাশের জঙ্গলে নিয়ে তাকে গণধর্ষণ করে। পরদিন সকালে দুইজনকে ছেড়ে দেয় তারা।

এদিকে গণধর্ষণের পর গত বুধবার সকালে সালিশ বসিয়ে উল্টো ওই নারীকেই ১০ হাজার ও যুবককে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। তবে অভিযুক্তদের পরিবারের দাবি, গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেনি।

ঘটনার দুদিন পর স্থানীয় আদিবাসী গাঁওতা নেতা রবীন সরেনের উদ্যোগে পুলিশে অভিযোগ করেন ওই নারী। রবীন বলেন, ‘খুবই ভয়ে আছেন নির্যাতিতা। এই অন্যায় মেনে নেয়া যায় না। তাই ওর পাশে দাঁড়িয়েছি।’

জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিংহ বলেন, ‘পাঁচ যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছেন ওই নারী। জলপা হাঁসদা ও তাম্বর মারান্ডি নামে দুজন ইতোমধ্যেই ধরা পড়েছে।’

আপনার মতামত জানানঃ