ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  ক্রাইম   »   গাংনীতে প্রেমিক-প্রেমিকার আত্বহত্যা

গাংনীতে প্রেমিক-প্রেমিকার আত্বহত্যা

September 10, 2016 - 2:53 PM

গাংনী ব্যুরো: মেহেরপুরের গাংনীতে গোপনে বিয়ে করায় দু’পরিবারে মেনে না নেয়ায় প্রেমিক-প্রেমিকা আত্বহত্যা করেছেন। এরা হলেন-গাংনী উপজেলার শালদহ গ্রামের আমিনুল ইসলামের পুত্র ও গাংনী ডিগ্রী কলেজের এইচ এসসি পরীক্ষার্থী ইমরান হোসেন (২৪) ও বাঁশবাড়িয়া গ্রামের মৃত বাবলু আলীর কন্যা এবং গাংনী মহিলা ডিগ্রী কলেজের এইচ,এসসি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী সাবিনা ইয়াসমিন।
এলাকাবাসি সূত্রে জানা যায়,ইমরান ও সাবিনার মধ্যে কয়েক মাস যাবত মন দেয়া-নেয়া চলছিল। সম্প্রতি তারা একে অপরকে ভালো বেসে গোপন বিয়ে করেন। বিষয়টি দু’পরিবারের লোকজনের শোনার পর তাদের এ বিয়ে মেনে নিতে পারছিলো না। এ কারণে ইমরান অভিমানে গত বৃহস্পতিবার দুপুরে নিজ ঘরে বিষপান করে। প্রতিবেশীরা টের পেয়ে তাকে উদ্ধার করে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নেয়। তার শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখা দিলে, ওই দিনই তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার রাতে তার মৃত্যু হয়। এদিকে প্রেমিকের মৃত্যুর খবর শুনে প্রেমিকা সাবিনা গতকাল শুক্রবার সকালে তার বাবার বাড়ি বাঁশবাড়িয়ায় ঘরের আড়ার সাথে গলাই ওড়না পেচিয়ে আত্বহত্যার চেষ্টা করেন। প্রতিবেশীরা টের পেয়ে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নেয়। তার শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখা দিলে,তাকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গতরাত ১০টার সময় কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। গতকাল শুক্রবার জানাজা শেষে ইমরানকে শালদহ গোরস্থান ময়দানে দাফন করা হয়। এদিকে গতরাত ১২টায় এ রিপোর্টার লেখা পর্যন্ত সাবিনার লাশ কুষ্টিয়া থেকে বাড়িতে নেয়ার প্রক্রিয়া চলছিল।

আপনার মতামত জানানঃ