ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  জাতীয়   »   কোরবানির আর বাকি কয়েকদিন

কোরবানির আর বাকি কয়েকদিন

September 7, 2016 - 2:04 PM

নিজস্ব প্রতিবেদক : কোরবানির আর বাকি কয়েকদিন। পশুর হাটে শুরু হয়েছে গরু কেনার তোড়জোড়। ক্রেতাদের আকর্ষণ করতে পাইকাররা বিভিন্নভাবে গরুকে সাজিয়েছেন।

বিভিন্ন রঙের কাগজ ও কাপড়ের মালা দিয়ে গরু সাজানো হয়েছে। তবে পশুর হাটে গেলে সবচেয়ে বেশি চোখে পড়ে বড় গরুর গলায় মালা-ঘণ্টা।

সরেজমিনে গাবতলী গরুর হাটে দেখা যায়, আকারভেদে গরুর গলায় ঘণ্টা বেধে রাখা হয়েছে। ছোট গরুর ক্ষেত্রে ছোট। বড় গরুর গলায় ঝুলছে বড় বড় মালা-ঘণ্টা।

পাইকাররা তাদের গরু সাজাতে ভিড় জমাচ্ছেন বাজারের পাশে বসা অস্থায়ী মালা ও ঘণ্টার দোকানে। প্রকারভেদে এক একটি ঘণ্টার দাম ২০০টাকা থেকে ৪০০টাকা। মালার দাম সর্বনিম্ন ২০টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৬০ টাকা।

এ ছাড়া গরু কেনার পর ক্রেতারা যেন গরু সামলাতে পারেন সে জন্য বিক্রি হচ্ছে বাঁশের লাঠি। এসব লাঠির দাম ২০টাকা।

গাবতলী পশুরহাটে পাইকারদের সঙ্গে আলাপ করে জানা যায়, গরুর দাম ভালো পেতেই তারা বিভিন্ন সাজে গরু সাজান। কারণ ক্রেতারা পরিচ্ছন্ন ও সাজানো গরুই বেশি দরদাম করেন। বিশেষ করে ক্রেতার সঙ্গে যদি তার সন্তান থাকে তাহলে তারা সেটি বেশি পছন্দ করেন।

কুষ্টিয়া থেকে আসা পাইকার তিলাম হোসেন বলেন, গরুর গলায় মালা থাকলে গরুর প্রতি ক্রেতাদের আলাদা নজর থাকে। এ জন্য গরু সাজাতে হয়।

তিনি আরো বলেন, আমরা সারা বছর এই একটি সময়ের অপেক্ষা করি। ঈদে যদি ব্যবসা ভালো হয় তাহলে পরিবার পরিজন নিয়ে সারা বছর ভাল থাকা যায়। এজন্য গরুর প্রতি আলাদা যত্ম নিতে হয়।

রাজশাহী থেকে আসা গরু পাইকার মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, বাজার এখনও জমে উঠেনি। তবে যেসব ক্রেতারা আসছেন তাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে গরু সাজিয়ে রাখা হচ্ছে। ভাল গরুর ভাল দাম পাওয়া যায়।

মালা ব্যবসায়ী সোলেমান মিয়া বলেন, গরু ব্যাপারীরা তাদের ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য মালা, ঘণ্টা কেনেন। পাশাপাশি ক্রেতারাও গরু কেনার পর তাদের গরুকে সাজিয়ে বাড়িতে নিয়ে যান। এজন্য তারাও মালা কেনেন।

তিনি বলেন, কোরবানির পশু কেনার বাজার শুরু হলেও বাজার এখনও জমেনি। আশা করছি ঈদের দুই তিনদিন আগে বাজার ভালোভাবে জমে উঠবে। এতে মালা-ঘণ্টা বিক্রির ব্যবসাও বাড়বে।

আপনার মতামত জানানঃ