ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  লাইফস্টাইল   »   কার্বন মনোক্সাইড আপনাকে ভুত-প্রেত দেখায়!

কার্বন মনোক্সাইড আপনাকে ভুত-প্রেত দেখায়!

January 20, 2021 - 3:48 PM

ভুত-প্রেত দেখার কথা অনেকের মুখেই শোনা যায়। আমাদের চোখের সামনে এমন অনেক ঘটনা ঘটে যায় যার ব্যাখ্যা দেওয়া সত্যই মুশকিল। কিন্তু বিজ্ঞান সবসময় এই সমস্ত রহস্যময় ও ভুতুড়ে ঘটনার কারণ খুঁজে চলেছে। এরই ধারাবাহিকতায় আবিষ্কৃত হয়ে নানান চমকপ্রদ তথ্য। আপনি কি জানেন যে অনেক বিষাক্ত গ্যাস আছে যার কারনে মানুষ চোখের সামনে ভুত কিংবা অশরীরী আত্মার দেখা পায়? ঠিক তেমনই এক বিষাক্ত গ্যাস কার্বন মনোক্সাইড।

ইতিহাসের বিখ্যাত চক্ষু বিশেষজ্ঞ ডঃ উইলিয়াম ভিলমার ১৯২১ সালে আমেরিকান জার্নাল অব অফথালমোলজিতে একটা আজব ধরণের গবেষণাপত্র প্রকাশ করেছিলেন।

কার্বন মনোক্সাইড কি?

কার্বন মনোক্সাইড হচ্ছে গন্ধবিহীণ, বর্ণবিহীন বিষাক্ত গ্যাসীয় পদার্থ। মানবশরীরের রক্ত কার্বন মনোক্সাইড সহজে শোষণ করতে পারে না। এর ফলে দেখা দেয় শারিরীক দূর্বলতা, বমি বমি ভাব, দুশ্চিন্তা, মানসিক অস্থিরতা ইত্যাদি। তবে সবচেয়ে বড় ব্যাপার যেটা সেটা হলো- এই বিষক্রিয়া আপনার ভেতরে হ্যালুসিনেশানের মাত্রা বাড়ায়। আর এই হ্যালুসিনেশনের কারণেই সেই পরিবারটি চোখের সামনে উলটাপালটা জিনিস দেখতে পেত। কিন্তু বাস্তবে বাড়িতে আসলে ভুত প্রেত বলতে কিছুই ছিলো না।

কার্বন মনোক্সাইড নিয়ে একটি ঘটনা –
২০০৫ সালে কানাডার অটোয়াতে বাস করা একজন মহিলা ৯১১ তে ফোন দিয়ে বললেন তার বাথরুমে নাকি তিনি ভূত দেখতে পাচ্ছেন। মহিলার চিৎকার চেচামেচি শুনে পুলিশের লোকেরা বাড়িতে আসে। এসে তারা ভুত প্রেত কিছুর দেখা পেল না। কিন্তু পরে খুঁজে দেখা গেলো যে বাথরুমের ওয়াটার হিটারে লিক আছে যেটার মাধ্যমে পুরো ঘর কার্বন মনোক্সাইড গ্যাসে ভরে যাচ্ছিলো। এর ফলে মহিলা বিষক্রিয়ায় আক্রান্ত হয়েছিলেন এবং হ্যালুসিনেশনে ভুগে ভুত জাতীয় কিছু চোখের সামনে দেখতে পাচ্ছিলেন। অতএব বুঝতেই পারছেন, ভুত-প্রেত বলতে আমরা যা বুঝি বাস্তবে সেটা নাও থাকতে পারে!

কিভাবে বুঝবেন আপনার বাসায় কার্বন মনোক্সাইডের কারণে সমস্যা হচ্ছে কিনা? কার্বন মনোক্সাইড সংক্রামনের লক্ষন জানতে পড়তে পারেন Rx71 হেলথ কেয়ারের এই আর্টিকেলটি।

সুতরাং এরপরে গ্রামের বাড়িতে বেড়াতে গিয়ে কিংবা কোন খালি বাড়িতে কৌতূহলবশত উঁকি মেরে দেখতে গিয়ে যদি অদ্ভুত কিছু দেখতে পান তাহলে সাথে সাথে ভয় পেয়ে যাবেন না। যদি সাদা কাপড় পড়া কাউকে তেড়ে আসতে দেখেন, তাহলে অজ্ঞান হয়ে পড়ে যাবার আগে সেখানে কার্বন মনোক্সাইড জাতীয় বিষাক্ত গ্যাসের অস্তিত্ব আছে কিনা সেটা নিশ্চিত হয়ে নিন। মনে রাখবেন- অতিরিক্ত ধুমপানের ফলেও এই ধরণের হ্যালুসিনেশন ঘটতে পারে!

আপনার মতামত জানানঃ