ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  Uncategorized   »   কাঁঠালিয়ায় শিশু ছাত্রকে নির্যতানের অপরাধে স্কুল শিক্ষক নিরঞ্জনের ৬মাসের সশ্রম কারাদন্ড

কাঁঠালিয়ায় শিশু ছাত্রকে নির্যতানের অপরাধে স্কুল শিক্ষক নিরঞ্জনের ৬মাসের সশ্রম কারাদন্ড

October 6, 2016 - 1:48 PM

মো.মোছাদ্দেক বিল্লাহ ঝালকাঠি জেলা প্রতিনিধি
ঝালকাঠির কাঁঠালিয়ায় পড়া না পারার অপরাধে এক শিশু শিক্ষার্থীকে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগে নিরঞ্জন হালদার নামের এক শিক্ষককে ৬মাস সশ্রম কারাদন্ড ও এক হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরো একামাসের কারাদন্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরের ঝালকাঠি সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. হুমায়ুন কবির (১৯৭৪ সনের ৩৪ধারায় শিশুর উপর নিষ্ঠুরতা) এ রায় প্রদান করেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি নিরঞ্জন আদালতে উপস্থিত ছিল।
দন্ডপ্রাপ্ত নিরঞ্জন হালদার কাঁঠালিয়া উপজেলার দক্ষিণ চেঁচরী জোমাদ্দার হাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক এবং বাঁশবুনিয়া গ্রামের মৃত নিকুঞ্জ হালদারের ছেলে।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, বাঁশবুনিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কর্মরত সময়ে ২০১৩ সনের ১৮ ফেব্রুয়ারি ওই বিদ্যালয়ের ৫ম শ্রেণির বিজ্ঞান ক্লাসে জাহিদ হোসেন নামের ছাত্র পড়া না পারার অপরাধে শাস্তি প্রদানের উদ্দেশ্যে শ্রেণি শিক্ষক নিরঞ্জন হালদার ওই ছাত্রের চুলের মুষ্টি ধরে বেঞ্চের উপরে তোলার চেষ্টা করলে ছাত্রের মাথার একাংশ চামড়াসহ চুল উঠে যায়। এতে ছাত্র জাহিদ রক্তাক্ত জখম হয়। আহত ওই ছাত্রকে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্র এবং পরে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় ছাত্রের বাবা মো. জাকির হোসেন বাদি হয়ে শিক্ষক নিরঞ্জন হালদারকে আসামি করে ২০১৩ সনের ১এপ্রিল ঝালকাঠি সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে শিশু আইনে মামলা করেন।
মামলার বাদি (ছাত্র জাহিদের বাবা) মো. জাকির হোসেন মানুষ গড়া কারিগরের নিষ্ঠুরতার অপরাধে আদালতের দেয়া রায়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।
বাদি পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. শামীম হোসেন জানান, বর্তমান সংশোধিত আইনে এ অপরাধে সর্বোচ্চ ৫ বছরের জেল ও এক লাখ টাকা জরিমানার বিধান রয়েছে। কিন্তু পর্বের ঘটনার প্রচলিত আইনে আসামিকে সর্বোচ্চ সাজা দেয়া হয়েছে।

আপনার মতামত জানানঃ