ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  জাতীয়সারা বাংলা   »   ওবায়দুল কাদেরকে রাজাকার বলায় নোয়াখালীতে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ

ওবায়দুল কাদেরকে রাজাকার বলায় নোয়াখালীতে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ

January 22, 2021 - 8:08 PM

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে ফেসবুক লাইভে সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী রাজাকার বলায় ফুঁসে উঠেছে নোয়াখালী। স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা শহরে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেছেন। সড়ক অবরোধ করে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেন তারা।

সমাবেশে নোয়াখালী-৪ আসনের এ এমপির কুশপুতুল দাহ করে কোম্পানীগঞ্জ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

বৃহস্পতিবার (২১ জানুয়ারি) রাতে একরামুল করিম চৌধুরী ফেসবুক লাইভে এসে ওবায়দুল কাদের ও তার পরিবারকে রাজাকার বলে আখ্যায়িত করে। শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) বিকেলে বসুরহাট রূপালী চত্বরে প্রতিবাদ সমাবেশ ও সংবাদ সম্মেলন করেন উপজেলা আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা।

এ সময় বসুরহাট পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র আবদুল কাদের মির্জা একরামুল করিমকে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক থেকে বহিষ্কারসহ কমিটি বাতিলের দাবি জানান।

আবদুল কাদের মির্জা বলেন, একরামুল কবির চৌধুরীকে বহিষ্কার না করা পর্যন্ত লাগাতার ধর্মঘট আমরা চালিয়ে যাবো।

এর আগে সকালে আবদুল কাদের মির্জার বিরুদ্ধে, মাইজদী শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেন সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরীর সমর্থকরা। তবে দুপুরে ফেসবুক লাইভে এসে আগের দেওয়া বক্তব্য প্রত্যাহার করে একরামুল করিম চৌধুরী দাবি করেন, তিনি ওবায়দুল কাদেরকে নন, কাদের মির্জাকে রাজাকার বলেছেন।

নোয়াখালী-৪ আসনের সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরী বলেন, আমি গতকাল রাতে একটা স্ট্যাটাস দিয়েছিলাম, তবে সেটা আমি মির্জা কাদেরকে বুঝিয়েছি। ওবায়দুল কাদের ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা। আর মির্জা কাদেরদের পরিবার মুক্তিযোদ্ধা বিরোধী পরিবার।

সদ্য অনুষ্ঠিত বসুরহাট পৌর নির্বাচনকে ঘিরে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে নোয়াখালীর রাজনীতি। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই ও পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র আবদুল কাদের মির্জা তার বক্তব্যে একরামুল করিম চৌধুরীর সমালোচনা করেন। এরই প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার রাতে ১১টা ৩২ মিনিটে ব্যক্তিগত ফেসবুকের লাইভে এসে ওবায়দুল কাদেরের পরিবারকে রাজাকার বলে আখ্যায়িত করে ভিডিও পোস্ট করেন। তবে কিছুক্ষণ পর সে ভিডিও সরিয়ে ফেললেও তার আগেই তা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

Tags:

আপনার মতামত জানানঃ