ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  অর্থনীতি   »   ঊর্ধ্বমুখী সূচক ও লেনদেন পার হয়েছে গত সপ্তাহ

ঊর্ধ্বমুখী সূচক ও লেনদেন পার হয়েছে গত সপ্তাহ

December 10, 2016 - 7:22 AM

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক : ঊর্ধ্বমুখী সূচক ও লেনদেন পার হয়েছে গত সপ্তাহ। সাপ্তাহিক ব্যবধানে দেশের উভয় পুঁজিবাজারে সব ধরনের মূল্য সূচকের সঙ্গে বেড়েছে লেনদেন।

সাপ্তাহিক রিটার্নে দর বেড়েছে ১৩ খাতে। দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সার্বিক মূল্য আয় অনুপাত (পিই রেশিও) বেড়েছে।

বিশ্লেষণে দেখা গেছে, সাপ্তাহিক ব্যবধানে দেশের উভয় স্টক এক্সচেঞ্জে সূচককের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা বিরাজ করে। সূচকের পাশাপাশি লেনদেন কিছুটা বাড়ে। সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হওয়া ৫ কার্যদিবসের পাঁচ দিনই বেড়েছে সূচক। একই সঙ্গে বেড়েছে লেনদেন হওয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার দর। এরই ধারবাহিকতায় সপ্তাহশেষে ডিএসইতে গড় লেনদেন হয়েছে ৮৭০ কোটি টাকা। যা গত সপ্তাহের তুলনায় ২০.৮৩ শতাংশ বেশি।

সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৬৯.৭৯ পয়েন্ট বা ১.৪৫ শতাংশ বেড়েছে। আর ডিএসইএক্স শরিয়াহ সূচক ১১.৮৬ পয়েন্ট বা ১.০৩ শতাংশ ও ডিএসই ৩০ সূচক ৭.৯৬ পয়েন্ট বা ০.৪৫ শতাংশ বেড়েছে।

আর সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে ৩৩০টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৮২টি, কমেছে ১২০টি, অপরিবর্তিত রয়েছে ২৬টি  এবং লেনদেন হয়নি ৩টি কোম্পানির। এগুলোর উপর ভর করে মোট ৪ হাজার ৩৫০ কোটি ৬২ লাখ ৮৯ হাজার ৪৬২ টাকা লেনদেন হয়েছে। দৈনিক গড় হিসাবে এ লেনদেন হয়েছে ৮৭০ কোটি ১২ লাখ ৫৭ হাজার ৭৮৯ টাকা। যা আগের সপ্তাহে মোট ৩ হাজার ৬০০ কোটি ৫০ লাখ ৭ হাজার ৫৩২ টাকা লেনদেন হয়েছিল। সে হিসেবে আগের সপ্তাহের তুলনায় ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে ২০.৮৩ শতাংশ।

মোট লেনদেনের ৯০.২৫ শতাংশ এ ক্যাটাগরিভুক্ত, ২.২৬ শতাংশ বি ক্যাটাগরিভুক্ত, ৬.০০ শতাংশ এন ক্যাটাগরিভুক্ত এবং ১.৪৯ শতাংশ জেড ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে হয়েছে।

এদিকে, দেশের অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) প্রধান সূচক সিএসইএক্স বেড়েছে ১২৮.৪০ পয়েন্ট ১.৪২ শতাংশ। সপ্তাহজুড়ে সিএসইতে তালিকাভুক্ত মোট ২৮০টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর মধ্যে দর বেড়েছে ১৭৫টি কোম্পানির। আর দর কমেছে ৮৫টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ২০টির। আর সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হয়েছে ২৬১ কোটি ৩৩ লাখ ৯৫ হাজার ৬৮৩ টাকার শেয়ার।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন বৃদ্ধির পরিমাণ ছিল ২০ দশমিক ৮৩ শতাংশ। আলোচ্য সপ্তাহে লেনদেন হয়েছে ৪ হাজার ৩৫০ কোটি ৬২ লাখ টাকার শেয়ার। যা এর আগের সপ্তাহে ছিল ৩ হাজার ৬০০ কোটি ৫০ লাখ টাকার শেয়ার। সেই হিসাবে গত সপ্তাহে লেনদেন বেড়েছে ৭৫০ কোটি ১২ লাখ টাকা বা ২০.৮৩ শতাংশ।

সমাপ্ত সপ্তাহে ‘এ’ ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৯০ দশমিক ২৫ শতাংশ। ‘বি’ ক্যাটাগরির কোম্পানির লেনদেন হয়েছে ২ দশমিক ২৬ শতাংশ। ‘এন’ ক্যাটাগরির কোম্পানির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৬ শতাংশ। ‘জেড’ ক্যাটাগরির লেনদেন হয়েছে ১ দশমিক ৪৯ শতাংশ।

ডিএসই ব্রড ইনডেক্স বা ডিএসইএক্স সূচক বেড়েছে ১ দশমিক ৪৫ শতাংশ বা ৬৯ দশমিক ৭৯ পয়েন্ট। সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসই৩০ সূচক বেড়েছে দশমিক ৪৫ শতাংশ বা ৭ দশমিক ৯৬ পয়েন্ট। অপরদিকে, শরীয়াহ বা ডিএসইএস সূচক বেড়েছে ১ দশমিক ০৩ শতাংশ বা ১১ দশমিক ৮৬ পয়েন্টে।

বিদায়ী সপ্তাহে ডিএসইতে দর (রিটার্ন) বেড়েছে ১৩ খাতে। অন্যদিকে দর কমেছে বাকী ৭ খাতে। লংকাবাংলা সিকিউরিটিজ লিমিটেড সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, আলোচিত সপ্তাহে সবচেয়ে বেশি দর বেড়েছে বস্ত্র খাতে। এই খাতে ৬ দশমিক ৯২ শতাংশ দর বেড়েছে। এরপরে আইটি খাতে ৪ দশমিক ৬২ শতাংশ দর বেড়েছে। আর দম কমা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সিমেন্ট খাতে ২ দশমিক ২১ শতাংশ, সিরামিক খাতে দশমিক ৫২ শতাংশ, সাধারণ বিমা খাতে ২ শতাংশ, বিবিধ খাতে ২ দশমিক ২১ শতাংশ, পেপার অ্যান্ড প্রিন্টিং খাতে ৩ দশমিক ৬৩ শতাংশ ও ভ্রমণ-অবকাশ খাতে ১ দশমিক ৪৮ শতাংশ দর কমেছে।

আপনার মতামত জানানঃ