ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  আইন-আদালত   »   ইউএনও হত্যাচেষ্টাঃ হামলার দায় স্বীকার করলো মালি রবিউল

ইউএনও হত্যাচেষ্টাঃ হামলার দায় স্বীকার করলো মালি রবিউল

সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০ - ৬:৩১ অপরাহ্ণ

দিনাজপুর ঘোড়াঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা ওমর আলীর ওপর হামলার দায় স্বীকার করেছে সরকারি বাসভবনের বাগানের কাজে নিয়োজিত মালি রবিউল ইসলাম।

দ্বিতীয় দফাসহ মোট ৯ দিনের রিমান্ড শেষে রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এ হামলার দায় স্বীকারের কথা বলেছে সে।

পুলিশের তদন্তে রবিউল পরিকল্পনা অনুযায়ী একাই এ হামলা চালিয়েছে।

আসামি রবিউল ইসলামকে দ্বিতীয় দফা ৩ দিনের রিমান্ড শেষে সকাল ১০টায় কড়া পুলিশি নিরাপত্তার মধ্যদিয়ে আদালতে নিয়ে আসা হয়। পরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ইসমাইল হোসেনের আদালতে কার্যবিধি ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয় সে।

এ মামলার তদন্ত কর্মকতা ওসি (ডিবি) ইমাম জাফর জানান, সরাসরি রবিউলকে বিচারকের খাসকামরায় নিয়ে যাওয়া হয়। জবানবন্দি প্রদানের সময় এ হামলার দায় স্বীকার করেছে রবিউল। জবানবন্দি শেষে তাকে ডিবির সহায়তায় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়।

ডিবির তথ্যানুযায়ী সকাল সাড়ে ১১টায় আদালতে হাজির করার কথা থাকলেও তড়িঘড়ি করে সকাল ১০টায় কড়া নিরাপত্তায় পুলিশি প্রহরায় তাকে নিয়ে আসা হয় আদালতে।

এসময় চিফ জুডিশিয়াল ভবনের মধ্যে সাংবাদিক প্রবেশে বাধা দেয়া হয়। সকাল ১০টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত প্রচুর সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন রাখা হয় সেখানে।

জবানবন্দি শেষে তদন্ত কর্মকতা ওসি (ডিবি) ইমাম জাফর গণমাধ্যম কর্মীদের বলেন, রবিউল হামলার দায় স্বীকার করেছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী সে একাই এ হামলা চালিয়েছে।

দিনাজপুর কোর্ট পরিদর্শক ইসরাইল হোসেন জানান, রোববার সকাল ১০টায় এ চাঞ্চল্যকর মামলার গ্রেফতারকৃত আসামি ঘোড়াঘাট উপজেলা পরিষদের সাময়িক বরখাস্তে থাকা মালি রবিউল ইসলামকে কড়া পুলিশ পাহাড়ায় আদালতে হাজির করা হয়।রবিউলকে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ইসমাইল হোসেনের কাছে সোপর্দ করা হয়। রবিউল জবানবন্দি দিতে সম্মত হলে বিচারক তার খাস কামরায় জবানবন্দি গ্রহণ করেন।

উল্লেখ্য, ২ সেপ্টেম্বর মধ্যরাতে দিনাজপুর ঘোড়াঘাট উপজেলা ইউএনও ওয়াহিদা খানম ও তার বাবা ওমর আলীর ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। সেই দিন রাতে ইউএনও’র ভাই শেখ ফরিদউদ্দিন অজ্ঞাতনামা উল্লেখ করে হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করেন ঘোড়াঘাট থানায়। এ হামলার ঘটনায় ৫ জনকে আসামি করা হয়।

এ মামলার আসামিরা হলেন- আসাদুল, নবীরুল ,সান্টু, পলাশ এবং রবিউল।

আসাদুল, নবীরুল, সান্টু প্রত্যেককে ৭ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে কারাগারে পাঠানো হয়। রবিউল দুই দফায় ৯ দিনের রিমান্ড নেয় ডিবি পুলিশ।

Tags:

আপনার মতামত জানানঃ