ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  আইন-আদালত   »   আমি কোনো কথাই বলবো না

আমি কোনো কথাই বলবো না

September 9, 2016 - 11:25 AM

নিজস্ব প্রতিবেদক : ‘আমি কোনো কথাই বলবো না’ এটুকু বলেই তিনি ধীর পায়ে পাশ কাটিয়ে গেলেন। তারপর ফিরে তাকিয়ে নিজেকেই যেন প্রশ্নটি করলেন, ‘কী বলবো? বলার কিছু নেই।’ এ সময় বোঝা যাচ্ছিল সাম্প্রতিক অতীতের দাপুটে এই পুলিশ কর্মকর্তা বর্তমানে কতটা মানসিক যন্ত্রণায় দিন কাটাচ্ছেন। নিজেই বললেন সে কথা কিন্তু এক বাক্যে, ‘মন-মানসিকতাও এখন ভালো নেই’।

সদ্য চাকরি থেকে অব্যাহতি পাওয়া চট্টগ্রামের আলোচিত পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তারের সঙ্গে এই প্রতিবেদকের কথোপকথনের শুরুটা এভাবেই। শুক্রবার দুপুরে কালো রঙের একটি পাঞ্জাবি ও প্যান্ট পরে জুমার নামাজ পড়তে বাসার পাশে মসজিদে যাচ্ছিলেন বাবুল আক্তার। সে সময় এই প্রতিবেদকের সঙ্গে তার দেখা হয়।

সাক্ষাতের শুরুতে পরিচয় দিয়ে কথা বলার অনুমতি চাইতেই বাবুল আক্তার এড়িয়ে যান। এ সময় তাকে বিমর্ষ দেখাচ্ছিল। ‘কথা বলতে ইচ্ছ করছে না। আর কি-ই বা বলবো?’ বলেই তিনি মসজিদের ভেতর প্রবেশ করেন। প্রতিবেদক মসজিদের বাইরে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছিলেন তার ফিরে আসার জন্য। তিনি নামাজ শেষে ফিরেও আসেন। কিন্তু কোনো প্রশ্নেরই উত্তর তিনি দেননি। উল্টো বলেন, ‘সময় নষ্ট করে লাভ নেই।’

‘আপনি নিজেকে যে কোনো কারণেই হোক আড়াল করছেন। তাহলে এখন কি আপনি স্ত্রী হত্যারও বিচার চান না?’ এ প্রশ্নের জবাবে বাবুল আক্তার দৃঢ় কণ্ঠে বলেন, ‘আমি স্ত্রী হত্যার বিচার চাই। কিন্তু মামলার তদন্ত কি হচ্ছে তা তদন্ত সংশ্লিষ্টরাই ভালো বলতে পারবেন।’ এ কথা বলেই তিনি বাসার ভেতরে চলে যান।

কিছুক্ষণ পর সেখানে আসেন বাবুল আক্তারের শ্বশুড় মোশাররফ হোসেন। পুলিশের সাবেক এ পরিদর্শক বাসার সামনে দাঁড়িয়ে এ প্রতিবেদককে বলেন, ‘মেয়েকে হারিয়েছি। এখন জামাইকেও এক প্রকার হারিয়ে ফেলেছি। কেননা মিতু হত্যার ঘটনার তদন্ত চলছে। এর পরই আসলে জানা যেত বাবুল জড়িত কিনা? কিন্তু তার আগেই তাকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দেয়া হলো।’

মিতু হত্যায় বাবুল আক্তারের নাম আসছে। আপনি এ বিষয়টিকে কীভাবে দেখছেন? এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘বাবুলকে আমি অনেক আগে থেকেই চিনি। সে এ ধরনের কাজের সঙ্গে জড়িত আমি তা কোনভাবেই বিশ্বাস করছি না। ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত হলে আমার ধারণা সে নির্দোষও প্রমাণিত হতে পারে।’

৫ জুন চট্টগ্রাম নগরীর জিইসি’র মোড় এলাকায় ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার পথে দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাত ও গুলিতে খুন হন এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু। এরপরই বাবুল আক্তারকে নিয়ে রহস্য দানা বাঁধতে থাকে।

আপনার মতামত জানানঃ