ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  Uncategorized   »   আইন যেখানে অসহায় একজন জনপ্রতিনিধি কাছে

আইন যেখানে অসহায় একজন জনপ্রতিনিধি কাছে

August 30, 2016 - 2:25 PM

আলামিন,মেহেরপুর প্রতিনিধি:আধুনিক সমাজের মানুষ যখন উন্নত।বাংলাদেশ আধুনিক সমাজে মাথা উচু করে দাঁড়ায়ে পথ চলছে।সমাজের উন্নয়নের জন্য কাজ করছে সরকার ও বিভিন্ন এনজিও সংস্থা।বাংলাদেশের সকল গ্রাম যখন আধুনিকের আঁচল লেগেছে ঠিক তখন মেহেরপুর গাংনী উপজেলার রাইপুর ইউনিয়নের বাথানপাড়া গ্রামের মুক্তার হোসেন তার পিতার পরিচয় পাওয়া জন্য সমাজের সমাজপতিদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছে।
মেহেরপুর গাংনী উপজেলার ৯নং রাইপুর ইউনিয়নের তফেল উদ্দীনের ছেলে মুক্তার হোসেন(৪০)তার সাংসারিক বিশেষ প্রয়োজনে রাইপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত মেম্বর গোলাম হোসেন কাছে একাধিক বার নাগরিক সনদ ও ওয়ারিস সনদের জন্য মুখিক ভাবে মুক্তার হোসেন আবেদন করেন।কিন্তু মেম্বার আজ দেবো কাল দেবো বলে তাল বাহানা করেন।২দিন পরে আসিস বলে মেম্বার গোলাম হোসেন জানায় মুক্তার কে।কিন্তু দুই দিন পরে মেম্বার কাছে গেলে নাগরিক সনদ দেয়।কিন্তু ওয়ারিস সনদ চাইলে মেম্বার মুক্তার হোসেনকে বলে তোমাকে সনদ দিয়া হবেনা।তোমার ভাইয়েরা আমাকে ওয়ারিস সনদ দিতে নিষেধ করেছে।

পিতার ওয়ারিস সনদের জন্য সমাজের সমাজপতিদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছে অসহায় মুক্তার হোসেন।আধুনিক সমাজে এমন ঘটনা বিরল।পিতার পরিচয় ছাড়া সন্তান মূল্যহীন।কিন্তু মুক্তার হোসেন পিতার পরিচয়হীন দানবের মত বাঁচতে চাইনা।সাংবাদিকের কাছে এমন প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে মুক্তার হোসেন কাঁনায় ভেঙ্গে পড়েন।

মুক্তার হোসেন জানায়,আমি পিতার সম্পদ চাইনি।শুধু চাই পিতার পরিচয়।আল্লাহ আমাকে অনেক দিয়েছে।আমার জীবন এখন মূল্যহীন।পিতার ওয়ারিস ও পিতার পরিচয়হীন ভাবে বাঁচতে চাইনা।এভাবে বলছিল মুক্তার হোসেন ।কখন চোখের কোণা দিয়ে কাঁন্না এসে গেছে জানতে পারিনি মুক্তার।

রাইপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান গোলাম সাকলাইন ছেপু সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান,আমি ওয়ারিস সনদ দিবো কিন্তু ৫নং ওয়ার্ডের মেম্বরের সুপারিস লাগবে। ওয়ারিস সনদের জন্য মেম্বর সুপারিশ লাগে।

যোগাযোগ করলে মেম্বর গোলাম হোসেন জানান,আমি গ্রামে বসবাস করি ।ওর ভাইয়েরা প্রভাব শালী হওয়ায় আমি ওয়ারিস সনদ দিতে পারবো না।
গত ২৮শে আগষ্ট রাইপুর ইউপি চেয়ারম্যান বরাবর একটি ওয়ারিস সনদের জন্য মুক্তার হোসেন লিখিত আবেদন করে।গত দুই দিনে চেয়ারম্যানের পক্ষ থেকে কোন সহযোগিতা না পেয়ে মঙ্গলবার (৩০শে আগষ্ট) মেহেরপুর জেলা প্রশাসক,জেলা পুলিশ সুপার মেহেরপুর,জেলা প্রেস ক্লাব,বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি,মেহেরপুর ও গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার,থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও উপজেলা প্রেস ক্লাব গাংনী অভিযোগ প্রদান করেন।

আপনার মতামত জানানঃ