ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  জাতীয়প্রধান সংবাদ   »   আইনী ব্যবস্থায় নদী দখলমুক্ত করা হবে

আইনী ব্যবস্থায় নদী দখলমুক্ত করা হবে

October 9, 2016 - 1:18 PM

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রয়োজনে আইনী ব্যবস্থার মাধ্যমে নদী দখলমুক্ত করা হবে বলে মন্তব্য করেছেন নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান।

তিনি বলেছেন, নদী দখলকারীরা যতই প্রভাবশালী হোক না কেন; তাদের কাছ থেকে নদীকে দখলমুক্ত করা হবে। প্রয়োজনে তাদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

নদী রক্ষার্থে গঠিত ‘টাস্কফোর্স’ এর সভাপতি ও নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান রোববার সদরঘাট থেকে আশুলিয়া হয়ে টঙ্গি নদী বন্দর পর্যন্ত সরেজমিনে পরিদর্শনকালে এসব কথা বলেন।

এ সময় ‘টাস্কফোর্স’ এর সদস্য গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. জাফর আহমেদ খান, শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব পরাগ বেগম, বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমডোর এম মোজাম্মেল হক, বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যান মো. মিজানুর রহমান, জাতীয় নদীরক্ষা কমিশনের সদস্য মো. আলাউদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

নৌপরিবহন মন্ত্রী বলেন, রাজধানীর চারপাশের নদীগুলোর দখল ও দূষণরোধ এবং নাব্যতা বজায় রাখতে সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। নদীর সীমানা রক্ষার্থে সীমানা পিলার বসানো হয়েছে। নদীর জায়গা যাতে পুনরায় দখল না হয় সেজন্য ২০ কিলোমিটার ‘ওয়াকওয়ে’ নির্মাণ করা হয়েছে। আরো ৫০ কিলোমিটার ওয়াকওয়ে নির্মাণ করা হবে।

শাজাহান খান নদী তীরের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ, তীর ভরাট করে অবৈধ বালু-পাথরের ব্যবসা দ্রুত বন্ধে বিআইডব্লিউটিএ, ঢাকা জেলা প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি নির্দেশ দেন। এ লক্ষ্যে একটি কমিটি গঠনেরও নির্দেশ দেন। রাজধানীর চারপাশের নদী তীরে কি পরিমাণ অবৈধ স্থাপনা রয়েছে; সীমানা পিলারের সার্বিক অবস্থা নির্ণয় করতে শীঘ্রই জরিপ কার্যক্রম চালানোরও নির্দেশ দেন।

আপনার মতামত জানানঃ