ক্রাইম পেট্রোল বিডি  »  জাতীয়   »   ‘অবশ্যই জানা যাবে মসজিদে বিস্ফোরণের প্রকৃত কারণ’

‘অবশ্যই জানা যাবে মসজিদে বিস্ফোরণের প্রকৃত কারণ’

সেপ্টেম্বর ৬, ২০২০ - ৫:৪৪ অপরাহ্ণ

গেল শুক্রবার (৪ সেপ্টেম্বর) রাতে নারায়ণগঞ্জের তল্লা মসজিদে যে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে, সেসব নিয়ে তদন্ত করতে সংশ্লিষ্ট সবাইকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সরকার প্রধান শেখ হাসিনা।

রোববার (০৬ সেপ্টেম্বর) সকালে একাদশ জাতীয় সংসদের নবম অধিবেশনে শোক প্রস্তাবের আলোচনায় এ কথা বলেন তিনি।

এ ঘটনাটিকে অত্যন্ত দুঃখজনক উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘আমরা ইতিমধ্যে তদন্ত কমিটি গঠন করেছি। বিস্ফোরক বিশেষজ্ঞরা ঘটনাস্থলে গিয়েছেন; তারা নমুনাও সংগ্রহ করেছেন। এ ঘটনাটা কেনো-কিভাবে ঘটল, সেই ব্যাপারে বিস্তারিত তদন্ত হচ্ছে। আমি মনে করি অবশ্যই সেই কারণটিও বের হবে।’

এ ঘটনার শুরু থেকেই নিজ উদ্যোগে খোঁজ-খবর রাখছিলেন জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বার্ন ইনস্টিটিউটের ডা. সামন্ত লাল আমাকে সময়ে সময়ে হতাহতদের বিস্তারিত জানিয়েছেন। এ ঘটনায় এরই মধ্যে অনেকে মারাও গেছেন। আর বাকি যারা চিকিৎসাধীন তাদেরও অবস্থা খুব খারাপ। আহতদের চিকিৎসার সব ব্যবস্থাও সরকারের পক্ষ থেকে করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

এসি নাকি গ্যাস লাইনের লিকেজ থেকে বিস্ফোরণ ঘটেছে সেই বিষয়ে পূর্ণ তদন্ত চলমান জানিয়ে শেখ হাসিনা তার বক্তব্যে বলেন, ‘নামাজ পড়া অবস্থায় একটা মসজিদে এমন বিস্ফোরণ…! যেখানে ঐটুকু একটা জায়গায় ছয়টা এসি লাগানো। আবার শুনছি, ওখানে গ্যাসের লাইনের ওপরই নাকি মসজিদটা নির্মাণ করা হয়েছে। সাধারণত যেখানে গ্যাসের পাইপ থাকে, সেখানে কোনো নির্মাণ কাজ হয় না। আমি জানি না রাজউক থেকে এটার পারমিশন নেয়া হয়েছে কিনা! কেননা, এই ধরনের পারমিশন তো তারা দিতে পারে না; দেয়া উচিতও না। কেননা, সবসময় এটা আশঙ্কার ওপরই থাকে!’

দেশের সব মসজিদে যথাযথভাবে বিদ্যুতের সংযোগ দেয়া হয়েছে কিনা তা তদারকের নির্দেশ দিয়ে সংসদ নেতা শেখ হাসিনা বলেন, ‘এখন সবাই মসজিদে দান করে। আজকাল তো সকলেরই কমবেশি পয়সা আছে, মসজিদে এয়ার কন্ডিশন দিচ্ছে…। তো সেখানে যে বিদ্যুৎ সংযোগটা; কতটুকু নিতে পারবে। সেই ক্যাপাসিটি ছিলো কিনা, সব বিষয়গুলোই কিন্তু দেখতে হবে। আসলে অপরিকল্পিতভাবে কিছু করতে গেলে সেখান থেকে একটা দুর্ঘটনা ঘটতেই পারে।’

দেশে অপরিকল্পিতভাবে যাতে মসজিদগুলো নির্মাণ বা সেগুলোতে সংযোগ না দেয়া হয় সেজন্য বিদ্যুৎ, জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের পাশাপাশি মন্ত্রিপরিষদ সচিবকেও নিজেই নির্দেশ দিয়েছেন বলে সংসদকে জানান প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন ‘আমি নির্দেশ দিয়েছি যে, এই ঘটনাটার প্রকৃত কারণ বের করা, দেশের অন্যান্য সব মসজিদে, যারা অপরিকল্পিতভাবে ইচ্ছেমতো এয়ার কন্ডিশনার লাগাচ্ছেন। বা যেখানে-সেখানে মসজিদ গড়ে তুলছেন। সেই জায়গাটা আদৌ মসজিদ নির্মাণের উপযুক্ত কিনা। যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতি নেয়া হচ্ছে কিনা। এই বিষয়গুলো দেখতে হবে। নইলে এই ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতেই থাকবে।’

Tags:

আপনার মতামত জানানঃ